ডলার বুকিং করলে দাম বাড়ে না: বাংলাদেশ ব্যাংক

বড় প্রতিষ্ঠানগুলো আমদানি দায় পরিশোধ করতে ডলার বুকিং করে। এ ধরনের পদক্ষেপ একটি নিয়মিত বিষয়। এর মানে ভবিষ্যতে ডলারের দাম আরও বাড়বে বিষয়টা এমন নয় বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. মেজবাউল হক।

মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের এই কর্মকর্তা সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতের জন্য ডলার বুকিংয়ের সুযোগ একটি নিয়মিত কার্যক্রম। ডলার সংকট যে আরও বাড়বে বিষয়টা এমন নয়। বড় বড় প্রতিষ্ঠান আমদানি মূল্য যথা সময়ে পরিশোধ করতে এ ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। তাই বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন নির্দেশনা নিয়ে শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই।

এর আগে রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) ভবিষ্যতের জন্য ডলার বুকিং সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেখানে আগাম ডলার নেওয়ার ক্ষেত্রে এক বছর পর সর্বোচ্চ দাম কী হবে তাও বেঁধে দেওয়া হয়। নতুন নিয়মে এক বছর পর ব্যাংক ডলারের দাম বর্তমানের চেয়ে স্মার্ট হারের সঙ্গে সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ পর্যন্ত বেশি নিতে পারবে।

নতুন নিয়মে এক বছরের জন্য ডলার বুকিং দিয়ে রাখা যাবে। এজন্য গ্রাহককে অতিরিক্ত অর্থ দিতে হবে। এটা নির্ধারণ হবে এখন যে পদ্ধতির ওপর ভিত্তি করে ঋণের সুদহার নির্ধারিত হয়, তার মাধ্যমে। যেটা স্মার্ট বা সিক্স মান্থস মুভিং অ্যাভারেজ রেট অব ট্রেজারি বিল (এসএমএআরটি) হিসেবে পরিচিত।

প্রতি মাসের শুরুতে স্মার্ট রেট জানিয়ে দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। জুলাইয়ে স্মার্ট রেট ছিল ৭ দশমিক ১০ শতাংশ। আগস্টে তা বেড়ে হয়েছে ৭ দশমিক ১৪ শতাংশ, যা চলতি সেপ্টেম্বরেও অপরিবর্তিত রয়েছে। আগাম ডলারের দরের জন্য ‘এসএমএআরটি’ রেটের সঙ্গে আরও ৫ শতাংশ যোগ করতে হবে। অর্থাৎ ১২ দশমিক ১৪ শতাংশ হবে।

অর্থসূচক/এমএইচ/এমএস

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.