মাহমুদউল্লাহরা নিউজিল্যান্ড সিরিজে খেলবে: পাপন

পিঠের চোটের কারণে আগেই এশিয়া কাপ থেকে ছিটকে গেছেন তামিম ইকবাল। এরপর জ্বরের কারণে টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বের কোনো ম্যাচে খেলতে পারেননি লিটন দাস। প্রথম ম্যাচে তানজিদ হাসান তামিম ও নাইম শেখকে ওপেনিংয়ের সুযোগ দেয়া হলেও দ্বিতীয় ম্যাচে মেহেদী হাসান মিরাজ ও নাইমকে খেলিয়েছে বাংলাদেশ। এরই মধ্যে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে খেলতে পাকিস্তান যাচ্ছেন লিটন। ফলে পরবর্তী ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে লিটন একাদশে থাকলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। এশিয়া কাপের পর বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলবে।

এই সিরিজের দলে ডাকা হতে পারে এশিয়া কাপের বাইরে থাকা বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-মোসাদ্দেক হোসেনরা নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে থাকবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘ওদের সুযোগ থাকবে খেলার। আমার মনে হয়। আমি জানি খেলবে। এশিয়া কাপের দলটাই বিশ্বকাপের দল হওয়ার কথা ছিল। যেহেতু কয়েকটা কারণে এই পরিস্থিতিতে পড়েছি। নিশ্চিতভাবে বলতে পারি ইবাদত যদি ফিট থাকত সে আমাদের দলে থাকত। তামিম-লিটন যাবে। তাহলে এশিয়া কাপের দলটাকে বিশ্বকাপের দল বললে ভুল হবে।’

ইবাদত হোসেন বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছেন। কদিন আগেই তার পায়ের অস্ত্রোপচার করানো হয়েছে। তিনি না থাকলেও বিশ্বকাপে ফিরছেন ওপেনার তামিম। খেলবেন লিটন দাসও। ৫ সেপ্টেম্বর বিশ্বকাপের প্রাথমিক দল দেয়ার শেষ দিন। তবে ২৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত দল দেয়া হবে বলে জানালেন বিসিবি সভাপতি।

তিনি বলেন, ‘তামিম-লিটন দাসদের নাম দিলাম ধরেন। পড়ে যদি খেলতে না পারে। ফিট যদি না হয়। তবে তাই বলে দিচ্ছি না যে তা না। নিশ্চই ওদের নাম দেবে যদি দেয়। আমার কাছে এটা একাডেমী। তবে আমরা মেইন স্কোয়াডটা দেব আমরা নিউজিল্যান্ড সিরিজটা দেখে। এখানেও যারা আছে তারা অনেকে সুযোগ পাবে। আমরা আমাদের সেরা সম্ভাব্য স্কোয়াডটাই দেব ২৬ তারিখ।’

মাহমুদউল্লাহ দলের ভাবনায় আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, ‘আমি তো মনে করি আছে। না থাকার কারণ দেখি না। ১৫ জন পাঠালেও যে পরিমাণ ইনজুরির সমস্যা আছে। আমাদের খেলোয়াড়রা ইনজুরি প্রবন বেশি। কাল যেমন দেখেন শান্ত ব্যাথা পেল। কাল মিরাজ ব্যাথা পেয়েছে। এর আগের ম্যাচে মোস্তাফিজ ভুগেছে। এইগুলার কন্টিনিউয়াস রিপ্লেসমেন্ট লাগবে। আপনারা যদি মনে করেন ১১ জন খেলে আসবে তা ভুল, কন্টিনিউয়াস রিপ্লেসমেন্ট লাগবে। স্ট্যান্ডবাই যারা আছে তাদের ছোট করার দরকার নাই।’

অর্থসূচক/এএইচআর

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.