প্রথমবারের মতো চাঁদে জাপানি মহাকাশযান

টোকিও-ভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা আইস্পেস প্রথমবারের মতো চাঁদে মিশন পাঠানোর উদ্যোগ নেয়৷ সফল হলে এটিই হবে জাপানের কোন মহাকাশযানের চাঁদে প্রথম অবতরণ৷

গতকাল রোববার জাপানি স্টার্টআপের ডিজাইন করা একটি মহাকাশযান স্পেসএক্স রকেটে উড্ডয়ন করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা রাজ্যের কেপ ক্যানাভেরাল থেকে মহাকাশযান যাত্রা শুরু করে৷

‘হাকুতো-আর’ মিশন, জাপানি ভাষায় যার অর্থ ‘সাদা রঙের খরগোশ’ ২০২৩ সলের এপ্রিলে স্পেস কোম্পানি থেকে চাঁদে অবতরণ করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে৷ এই সাদা খরগোশ চাঁদে বসবাস করে এবং এশীয় দিনপঞ্জি মতে, আগামী বছর খরগোশের বছর৷

এক বিবৃতিতে স্টার্টআপের সিইও তাকেশি হাকামাদা জানান, প্রথম মিশনে চাঁদের সম্ভাবনা যাচাই করে সেটাকে একটি শক্তিশালী এবং প্রাণবন্ত অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় রূপান্তরিত করার ভিত্তি স্থাপন করবে ৷

কোম্পানিটি গুগল-এর লুনার এক্সপ্রাইজ প্রতিযোগিতায় পাঁচজন ফাইনালিস্টের মধ্যে একটি ছিল, যাদের ২০১৮ সালের মধ্যে চাঁদে অভিযান পাঠানোর কথা থাকলেও সেটা সম্ভব হয়নি। শেষ পর্যন্ত গতকাল তারা অভিযান শুরু করতে সক্ষম হয়৷

স্থানীয় সময় রাত ২টা বেজে ৩৮ মিনিটে হাকুতো-আর অভিযান শুরু হয়৷ এই অভিযানে স্পেসএক্স প্রতিষ্ঠানের ফ্যালকন নাইন মডেলের রকেট ব্যবহার করা হচ্ছে৷ মহাকাশযানে রয়েছে জাপানি স্পেস এজেন্সির একটি ছোট রোবট, কানাডা ভিত্তিক এক কোম্পানির ফ্লাইট কম্পিউটার এবং নাসার ছোট একটি লেজার পরীক্ষার যন্ত্র৷ সূত্র: ডিডাব্লিউ, এপি,এফপি

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...