আইসিসির বিশ্বকাপ সেরা একাদশে নেই কোনো বাংলাদেশি

গতকাল মেলবোর্নের ফাইনালের মধ্য দিয়ে পার্দা নেমেছে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত হওয়া এই ব্যাট-বলের লড়াইয়ে আলাদা করে নজর কেড়েছেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। তাদের মধ্য থেকেই সেরা এগারো জন ক্রিকেটারকে বেছে নিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা একাদশে সবচেয়ে বেশি চার জন ক্রিকেটার জায়গা পেয়েছেন ইংল্যান্ড দলের। চ্যাম্পিয়নস দলের অধিনায়ক জস বাটলারের পাশাপাশি একাদশে আছেন ওপেনার অ্যালেক্স হেলস, অলরাউন্ডার স্যাম কারান এবং পেসার মার্ক উড। তাছাড়া ভারত এবং পাকিস্তান থেকে জায়গা পেয়েছেন সমান দুইজন করে ক্রিকেটার। আর নিউজিল্যান্ড, সাউথ আফ্রিকা এবং জিম্বাবুয়ে থেকে একজন ক্রিকেটার করে আছেন আইসিসির টুর্নামেন্ট সেরা একাদশে। নেই বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটার।

আইসিসির আসর সেরা একাদশে ওপেনার হিসেবে আছেন বাটলার এবং হেলস। আসরের অন্যতম সেরা এই ওপেনিং জুটি সেমি-ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে রেকর্ড জুটি গড়ে দশ উইকেটে দলকে ম্যাচ জিতিয়েছিল। তাছাড়া আসরে চ্যাম্পিয়নদের হয়ে ৪৫ গড়ে সর্বোচ্চ ২২৫ রান করেছেন ইংলিশ অধিনায়ক। তার সঙ্গী হেলসের ব্যাট থেকে এসেছে ২১২ রান।

তিন নম্বরের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা নিজের দখলে রেখেছেন বিরাট কোহলি। ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক ফাইনাল না খেলতে পারলেও প্রায় ৯৯ গড়ে আসরের সর্বোচ্চ ২৯৬ রান করেছেন। চার নম্বরে সুযোগ পেয়েছেন আরেক ভারতীয় সূর্যকুমার যাদব। স্বপ্নের মতো আসর পার করা সূর্য ২৩৯ রান করেছেন প্রায় ১৯০ স্ট্রাইকরেটে। মিডল অর্ডারে সূর্যের সঙ্গে আছেন গেলন ফিলিপস। এই কিউই ব্যাটার এক সেঞ্চুরিতে প্রায় ৪০ গড়ে করেছেন ২০১ রান।

অলরাউন্ডার হিসেবে একাদশে আছেন মোট তিনজন। স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার শাদাব খান এবং সিকান্দার রাজা। রাজা ব্যাট হাতে ২১৯ রানের পাশাপাশি বল হাতে শিকার করেছেন ১০ উইকেট। আর শাদাব ব্যাট হাতে ৯৮ রানের পাশাপাশি বল হাতে শিকার করেছেন ১১ উইকেট।

আর একমাত্র পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে একাদশে আছেন স্যাম কারান। ব্যাট হাতে দলে অবদান রাখার তার খুব একটা সুযোগ হয়নি, তবে বল হাতে দুর্দান্ত ছিলেন এই তরুণ অলরাউন্ডার। ফাইনালে ৩ উইকেট সহ আসরে মোট ১৩ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। প্লেয়ার অব দ্য ফাইনালের পাশাপাশি প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্টের পুরস্কারও উঠেছে তার হাতে।

বোলিং ইউনিটে আছেন তিন পেসার। নতুন বলে গতি আর বাউন্সে দুর্দান্ত ছিলেন মার্ক উড। মাত্র ৪ ম্যাচ খেলে ৯ উইকেট শিকার করেছেন এই ইংলিশ পেসার। এই আসরেও নতুন বলে ব্যাটারদের বেশ ভুগিয়েছেন শাহিন আফ্রিদি। আসরের শুরুর দিকে সুবিধা করতে না পারলেও শেষদিকে ঠিকই জ্বলে ওঠেছেন তিনি। একাদশে জায়গা পাওয়া আরেক পেসার আনরিখ নরকিয়ে। ৫ ম্যাচ খেলে নামের পাশে ১১ উইকেট যোগ করেছেন এই প্রোটিয়া স্পিড স্টার।

একাদশের বাইরে অতিরিক্ত ক্রিকেটার হিসেবে একজনকে রেখেছে আইসিসি। টুয়েলভ ম্যান হিসেবে সুযোগ মিলেছে হার্দিক পান্ডিয়ার। পুরো আসর জুড়েই ব্যাটে-বলে দলের প্রয়োজনে অবদান রেখেছেন ভারতের এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার। সেমি-ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার সেই ঝড়ো হাফ-সেঞ্চুরিও নিশ্চিয়ই মনে রাখার মতো।

আইসিসির বিশ্বকাপ সেরা একাদশ: জস বাটলার, অ্যালেক্স হেলস, বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদব, গ্লেন ফিলিপস, সিকান্দার রাজা, শাদাব খান, স্যাম কারান, মার্ক উড, শাহিন আফ্রিদি, আনরিখ নরকিয়ে।

টুয়েলভ ম্যান: হার্দিক পান্ডিয়া

 

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...