‘কয়েক ভাগে বিনিয়োগ করবেন, তাহলে লস হলে কাভার করা যাবে’

বিনিয়োগকারীদের বিএসইসি কমিশনার

বিনিয়োগকারীদের মনে রাখা উচিত পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ খুবই কম। টাকা এক জায়গায় বিনিয়োগ করবেন না। কয়েকটি ভাগে বিনিয়োগ করবেন, তাহলে কখনো লস হলে সেটা কাভার করা যাবে।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) ‘বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ’ উপলক্ষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কমিশনার ড. রুমানা ইসলাম এসব কথা বলেন।

রুমানা ইসলাম বলেন, পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ খুবই কম। সবাই বিনিয়োগ কম সময়ে গেইন করতে চায়। রাতারাতি মুনাফা তুলে নিতে চায়। এ কারণে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বিনিয়োগকারীরা। তাই বিনিয়োগকারীদের উচিত ঝুঁকি কম নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ করা। দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগ করলে লাভবান হবেনই।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর উদ্যোক্তাদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাদের দেশের কোম্পানিগুলো প্রথম প্রজন্মের হাতে ভালো চললেও সেকেন্ড জেনারেশনের (দ্বিতীয় প্রজন্ম) হাতে গেলেই কোম্পানিগুলো আর বেঁচে থাকতে পারে না। এগুলো কোনোরকম বেঁচে থাকে, ভালো কিছু করতে পারে না। তার কারণ হচ্ছে কোম্পানিগুলোতে সুশাসনের অভাব রয়েছে। এগুলো ঠিক করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান বলেন, আপনার সঞ্চয়ের একটি অংশ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করুন। তবে কখনো সব টাকা বিনিয়োগ করবেন না। সব বিনিয়োগকারীদের উচিত আপদকালীন ফান্ড রাখা। কারণ এই ফান্ড যদি না থাকে আর সব ফান্ড পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করে ফেলে, তাহলে যেকোনো জরুরি প্রয়োজন হলে ক্ষতি করে অর্থের যোগান দিতে হয়। আমরা চিন্তাভাবনা না করে সঞ্চয়ের সব টাকা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করে ফেলি, কোনো কোনো ক্ষেত্রে লোন নিয়ে, সম্পদ বিক্রি করে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করি। যেহেতু পুঁজিবাজার ঝুঁকির জায়গা, এ জন্য আমার বক্তব্য হলো- আপনারা সঞ্চয়ের একটা অংশ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করুন। একটি আইটেমে বিনিয়োগ না করে দেখেশুনে গবেষণা করে বিভিন্ন আইটেমে বিনিয়োগ করুন। তবে বিনিয়োগের আগে কোম্পানিগুলোর পরিচালনা পর্ষদে কারা রয়েছেন, কোম্পানিগুলো ভালো লভ্যাংশ দিচ্ছে কি না এগুলোর দেখে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়া কখনো কোনো কোম্পানির শেয়ার উচ্চ দামে না কেনার আহ্বান জানিয়েছেন বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন সিএসইর চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম। আলোচনা করেন সিএসইর ভারপ্রাপ্ত এমডি গোলাম ফারুক। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চিফ রেগুলেটরি অফিসার (সিআরও) মোহাম্মদ মাহদী হাসান।

অর্থসূচক/ এএম/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...