থামছেই না বিটকয়েন সূচক পতনের ধারা

গত বছরের নভেম্বর মাস থেকে বড় পতনের মুখে বিট কয়েনের দর। মাঝে কিছুটা পরিবর্তন দেখা গেলেও সূচকের নিম্নমুখি প্রবণতার কোনো পরিবর্তন আসেনি। এক বছরের ব্যবধানে ডিজিটাল এই মুদ্রার দরপতন হয়েছে ৬০ শতাংশেরও বেশি। আগস্ট মাসে বিটকয়েনের দাম কমেছে প্রায় ১৪ শতাংশ।

গত বছরের নভেম্বর মাসের ১২ তারিখে প্রতিটি বিট কয়েনের মূল্য ছিলো ৬৬ হাজার ৪০০ মার্কিন ডলার বা ৬১ লাখ ২০ হাজার ৮০ টাকা (ডলার প্রতি ৯৫ টাকা ০৩ পয়সা হিসেবে)। সবশেষ গতকাল এই কয়েনের বিক্রয়মূল্য ছিলো ১৯ হাজার ৮৩৫ মার্কিন ডলার বা ১৮ লাখ ৮৪ হাজার ৯৬৫ টাকা। যা নভেম্বর মাসের বিটকয়েনের সর্বোচ্চ দরের তুলনায় প্রায় ৭০ শতাংশ কম।

এছাড়া, গত ছয় মাসে বিটকয়েনের দর পতনের হার ৪৯ দশমিক ৫০ শতাংশ। এ বছর বিটকয়েনের প্রতিটি কয়েনের সর্বোচ্চ মূল্য হাকা হয়েছিলো ৪৭ হাজার ৪৫৪ মার্কিন ডলার বা ৪৫ লাখ ৯ হাজার ৬৬৩ টাকা প্রায় এবং সর্বনিম্ন দর ছিলো ১৮ হাজার ৯৪৮ মার্কিন ডলার বা ১৮ লাখ ৬৭২ বাংলাদেশি টাকা। যা প্রায় গেলো দুই বছরের সর্বনিম্ন।

এদিকে আগস্ট মাসের ৩১ দিনের ব্যাবধানে বিট কয়েনের দর পতন হয়েছে ১৩ দশমিক ৮৫ শতাংশ। আগস্ট মাসের প্রথম দিনে প্রতিটি বিট কয়েনের মূল্য ছিলো ২৩ হাজার ২৭৩ দশমিক ৮০ ডলার বা ২২ লাখ ১১ হাজার ৭৬২ দশমিক ৯৮ বাংলাদেশি টাকা প্রায়। মাসের শেষ কার্যদিবস অর্থাৎ ৩১ আগস্ট বিটকয়েনের মূল্য ছিলো ২০ হাজার ৪৮ মার্কিন ডলার বা ১৯ লাখ ৫ হাজার ২২৬ দশমিক ৭৬ টাকা।

অন্যদিকে আজ (০৪ সেপ্টেম্বর) প্রতিবেদনটি লিখার সময় অব্দি বিটকয়েনের মূল্য ছিলো ১৯ হাজার ৬৮৯ দশমিক ৬০ মার্কিন ডলার বা ১৮ লাখ ৭১ হাজার ১৪৮ দশমিক ১৭ বাংলাদেশি টাকা প্রায়। যা গতকালের দরের তুলনায় ০ দশমিক ৭৪ শতাংশ কম।

ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুদ্রা ইথেরিয়ামের দামও নিম্নমুখী হয়েছে। গতদিনের তুলনায় যার মূল্য হ্রাস পেয়েছে ৮ দশমিক ৭০ শতাংশ। আজ প্রতি ইথেরিয়াম বিক্রি হয়েছে ১ হাজার ৫৪৮ দশমিক ৭ ডলার বা ১ লাখ ৪৭ হাজার ১৭৬ দশমিক ৫৪ টাকায়। এক দিনেই দরপতন হয়েছে ৮ দশমিক ৭০ ডলার।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, মূল্যস্ফীতি এখনই কমার সম্ভাবনা নেই। ফলে সুদের হার বাড়ানো হবে যতদিন পর্যন্ত তা নিয়ন্ত্রণে না আসে। এরপরই ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারে ব্যাপক অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। প্রায় প্রতিটি ক্রিপ্টো মুদ্রার ব্যাপক দরপতন ঘটেছে।

অথচ গত মাসের মাঝামাঝি পর্যায়ে এ বাজার চাঙা হয়। বিটকয়েনের মুদ্রা প্রায় ২৪ হাজার ৫০০ ডলারে ওঠে।

অর্থসূচক/এমআর

 

 

 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...