রাশিয়ার সেনা মহড়ায় চীন-ভারত!

ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যেই সেনা মহড়ার আয়োজন করেছে রাশিয়া। আগামী ৩০ অগাস্ট থেকে ৫ সেপ্টেম্বর রাশিয়ার পূর্ব প্রান্তে এই মহড়া হওয়ার কথা। যার নাম দেওয়া হয়েছে ভস্তক সেনা মহড়া। সেখানেই যোগ দেবে চীন। যোগ দেওয়ার কথা ভারতেরও।

একটি বিবৃতি দিয়ে চীন জানিয়েছে, রাশিয়ার আয়োজিত ওই সেনা মহড়ায় তারা যোগ দেবে। এর সঙ্গে ইউক্রেন যুদ্ধের কোনো সম্পর্ক নেই। এই মহড়ায় যোগ দিলে চীনের সেনার কৌশলগত উন্নতি হবে বলে তারা মনে করে। এর ফলে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কও গভীর হবে।

ভারতেরও এই মহড়ায় যোগ দেওয়ার কথা। যদিও বুধবার পর্যন্ত এ বিষয়ে ভারতের সেনাবাহিনী বা সরকারের তরফে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। ভারত রাশিয়ায় যাবে না, এমনও বলা হয়নি। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ভারত এই মহড়ায় অংশ নেবে। এছাড়াও বেলারুশ, তাজিকিস্তান, মঙ্গোলিয়া এই মহড়ায় যোগ দেবে। মোট ১৩টি ট্রেনিং ক্যাম্পে মহড়া হওয়ার কথা।

মহড়া ঘিরে দুইটি প্রশ্ন উঠেছে ভারতে। প্রথমত, ইউক্রেন যুদ্ধের সময়ে রাশিয়ায় সেনা মহড়ায় যোগ দেওয়ার অর্থ কী? এর ফলে কি ভারত কূটনৈতিক অবস্থান বদল করছে বলে পশ্চিম ধরে নেবে? পশ্চিমা দেশগুলির সঙ্গে এর ফলে কি ভারতের সম্পর্কে চিড় ধরবে? ইউক্রেন যুদ্ধে ভারত কোনোপক্ষকেই সমর্থন করেনি। তবে রাশিয়ার কাছ থেকে তেল কিনেছে। যা নিয়ে আমেরিকা ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল। কিন্তু ভারতের সঙ্গে সরাসরি বিতর্কে যায়নি। কিন্তু সেনা মহড়ায় যোগ দিলে অ্যামেরিকার কী অবস্থান হয়, সেটাই দেখার।

এদিকে চীনের সঙ্গে লাদাখ এবং অরুণাচলে রীতিমতো সংঘাতের পরিস্থিতি। লাদাখে এখনো দুই দেশের সেনার কার্যত স্ট্যান্ড অফ চলছে। এই অবস্থায় চীন এবং ভারতের সেনা কি একসঙ্গে মহড়ায় যোগ দেবে? মোট ১৩টি ক্যাম্পে মহড়া হবে বলে রাশিয়া জানিয়েছে। তাহলে কি চীন এবং ভারতের সেনা আলাদা আলাদা ক্যাম্পে যাবে? আকাশ এবং স্থলসেনা এই মহড়ায় যোগ দেবে বলে রাশিয়া জানিয়েছে। সূত্র: ডিডাব্লিউ, রয়টার্স, পিটিআই, দ্য হিন্দু

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...