ফের সপ্তাহজুড়ে পুঁজিবাজারে রক্তক্ষরণ

দেশের পুঁজিবাজারে যেন অস্থিরতা কোনোভাবেই কাটছে না। সদ্য সমাপ্ত সপ্তাহে পুঁজিবাজারে মূল্য সূচকের ব্যাপক দরপতন হয়েছে। কমেছে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণও। আলোচ্য সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন কমেছে ১১.৪৪ শতাংশ। ডিএসইতে বাজার মূলধনও কমেছে বড় ব্যবধানে।

ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আলোচ্য সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছে ৮৯৬ কোটি ১ লাখ ৩১ হাজার ৪৯৮ টাকা। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১০ হাজার  কোটি ১১ কোটি ৭২ লাখ ৮৫ হাজার ৬১৬ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে ৪৮ কোটি ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা গড় লেনদেন কমেছে।

এদিকে ডিএসইতে মোট লেনদেনের পরিমাণও কমেছে। গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩ হাজার ৫৮৪ কোটি ৫ লাখ ২৫ হাজার  টাকার শেয়ার। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৫ হাজার ৫৮ কোটি ৬৪ লাখ ২৮ হাজার টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে ১ হাজার ৪৭৪ কোটি ৫৯ লাখ ২ হাজার টাকার বা ২৯.১৫ শতাংশ লেনদেন কমেছে।

ডিএসইতে প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স সপ্তাহের ব্যবধানে ১৬৩ দশমিক ৪৮ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৫৯ শতাংশ কমে ৬ হাজার ১৪৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

আলোচিত সপ্তাহে বাজারমূলধনের শীর্ষ৩০  কোম্পানির মূল্যসূচক ডিএস৩০ আগের সপ্তাহের চেয়ে ৭০ দশমিক ৮১ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৩ শতাংশ কমে ২ হাজার ১৯৪ পয়েন্টে নেমেছে।

অন্যদিকে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২৯.৪৭ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ১৪ শতাংশ কমেছে।

ডিএসইতে গত সপ্তাহে ৩৯৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হয়। এর মধ্যে দাম বেড়েছে ৪১টির, কমেছে ২৮৭টির। আর ৫৮টির দাম ছিল অপরিবর্তিত।

অন্যদিকে ডিএসইতে বাজার মূলধনেও নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে ১০ হাজার ২১০ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার ৩১২ টাকা বা ১ দশমিক ৯৯ শতাংশ বাজার মূলধন কমেছে।

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শুরুর আগে ডিএসইতে বাজার মূলধন ছিল  ৫ লাখ ১৩ হাজার ৪৭৭ কোটি ৩৯ লাখ ৯৫  হাজার  টাকায়। আর সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৫ লাখ ৩ হাজার ২৬৬ কোটি ৪০ লাখ ৭২ হাজার  টাকায়।

অর্থসূচক/এসএ/

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...