ফ্লোর প্রাইস নিয়ে গুজব, ব্যবস্থা নেবে বিএসইসি

ফ্লোর প্রাইস নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। যা কমিশন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। কমিশন গুজব সৃষ্টিকারীদের শনাক্ত করছে এবং অতি দ্রুত তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানায় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) বিএসইসি তার নিজস্ব ফেসবুক পেজে বিনিয়োগকারীদের এই তথ্য জানায়।

পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্রতিটি শেয়ারে ফ্লোর প্রাইসের (দরপতনের সর্বনিম্ন সীমা) বিধান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে (বিএসইসি)।

কমিশন কর্তৃক যথাযথ ডিরেক্টিভ এর মাধ্যমে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ফ্লোর প্রাইস অব্যাহত থাকবে বলেও বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করা হয়।

উল্লেখ্য, পুঁজিবাজারে দরপতন ঠেকাতে চলতি বছরের ২৮ জুলাই ফ্লোর প্রাইস আরোপ করে বিএসইসি। বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়। যা গত ৩১ জুলাই রোববার থেকে কার্যকর রয়েছে।

কিন্তু সম্প্রতি বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সঙ্গে পুঁজিবাজারের সার্বিক অবস্থা নিয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার বৈঠকের পরের দিন থেকে বাজারে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ফ্লোর প্রাইস উঠিয়ে দেওয়া হবে। এমন গুজবের ফলে সর্বশেষ দু-তিন কর্মদিবস ধরে পুঁজিবাজারে দরপতন হচ্ছে বলে মনে করছে বিএসইসি।

এ বিষয়ে বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, পুঁজিবাজার পরিস্থিতি বিবেচনায় গত ২৮ জুলাই কমিশন ফ্লোর প্রাইস নির্ধারণ করে দিয়েছে। যা ৩১ জুলাই থেকে বলবৎ রয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি ফ্লোর প্রাইস নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। যারা ফেসবুক কিংবা সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়িয়েছে, তাদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। অতি দ্রুত তাদের বিচার করা হবে।

অর্থসূচক/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...