উত্তর কোরিয়া করোনা-মুক্ত, দাবি কিমের

করোনার বিরুদ্ধে তিনি জয়ী হয়েছেন বলে দাবি করলেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন। এ ছাড়া পিয়ংইয়ং থেকে যাবতীয় কড়াকড়িও প্রত্যাহার করা হয়েছে।

দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংবাদসংস্থা কেসিএনএ জানিয়েছে, করোনা-মুক্ত উত্তর কোরিয়ার কথা ঘোষণা করার পর কিম জানিয়েছেন, সবাইকে খুবই সাবধানে থাকতে হবে। বিশেষ করে সীমান্ত এলাকায় কড়া নজর রাখতে হবে। কারণ, এখনো বিশ্বে মাঙ্কিপক্স হচ্ছে, করোনাও ছড়াচ্ছে।

কিমের বোন কিম ইয়ো জং অভিযোগ করেছেন, দক্ষিণ কোরিয়া থেকেই তাদের দেশে করোনার ভাইরাস এসেছে।

গত মে মাসে উত্তর কোরিয়া করোনা রুখতে একাধিক ব্যবস্থা চালু করে। তবে করোনা পরীক্ষার খুব বেশি ব্যবস্থা ছিল না। এরপর উত্তর কোরিয়ায় ৪৮ লাখ মানুষের জ্বর হয়েছে বলে জানানো হয়েছিল। উত্তর কোরিয়ার জনসংখ্যা দুই কোটি ৬০ লাখ।

কেএনসিএ জানিয়েছে, কিম বলেছেন, করোনায় মাত্র ৭৪ জন মারা গেছেন। এটা অলৌকিক ঘটনা ছাড়া আর কিছু নয়।

আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা অবশ্য উত্তর কোরিয়ার দেয়া সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। গত মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তারা দাবি করেছিলেন, উত্তর কোরিয়ায় করোনা পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত কয়েকসপ্তাহ ধরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমতে থাকে। জুলাইয়ের শেষ থেকে আর কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি।

কেএনসিএ জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার শাসকের বোন কিম ইয়ো জং অভিযোগ করেছেন, দক্ষিণ কোরিয়া থেকেই করোনা ভাইরাস উত্তর কোরিয়ায় ঢুকেছে। প্রচার-লিফলেটে অভিযোগ করা হয়েছে, তার ভাই কিম জং উনেরও জ্বর হয়েছিল।

দক্ষিণ কোরিয়া বলেছে, তাদের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে। সূত্র: ডিডাব্লিউ, রয়টার্স, এপি, এএফপি

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...