শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আজ

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আজ। এতে বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে থাকা রনিল বিক্রমসিংহে, অনুরা কুমারা দিসানায়েকে এবং দুল্লাস আলহাপ্পেরুমা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

মঙ্গলবার পার্লামেন্টে পদের জন্য মনোনয়ন আহ্বান করা হয় এবং রনিল বিক্রমাসিংহে, দুলাস আলহাপ্পেরুমা এবং অনুরা কুমারা দিসানায়েকের নাম প্রস্তাব করা হয়। এসময় নিজ নিজ দলীয় নেতারা তাদের সমর্থন জানান।

বিরোধী দলীয় নেতা সাজিথ প্রেমাদাসা দুল্লাস আলাহাপ্পেরুমা এবং জি এল পেইরিসের নাম মনোনয়ন করেন। সংসদ নেতা দীনেশ গুনাওয়ারদেনা রনিল বিক্রমাসিংহেকে প্রস্তাব করেন এবং তাকে মানুশা নানায়েকারা সমর্থন জানান। অনুরা কুমারা দিসানায়েকের নাম প্রস্তাব করেন ন্যাশনাল পিপলস পাওয়ারের (এনপিপি) বিজিথা হেরাথ। এনপিপির পার্লামেন্ট সদস্য হারিনি অমরাসুরিয়া তাকে সমর্থন জানান।

নির্বাচনে কী পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে তার রূপরেখা দিয়েছে দ্বীপ দেশটির পার্লামেন্ট। মূলত গোপন ব্যালটের মাধ্যমে পার্লামেন্টের সদস্যদের ভোটে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

যদি কোনো সদস্যের ব্যালট পেপার চিহ্নিত করার সময় ক্রুটি দেখা দেয় (আইনে বলা হয়েছে, যদি কোনো সদস্যের অনিচ্ছাকৃত কারণে ব্যালট পেপার নষ্ট হয়…) তাহলে তিনি এটি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ফেরত দিতে পারবেন। যদি রিটার্নিং কর্মকর্তা তাতে সন্তুষ্ট হন, তবে তাকে অন্য ব্যালট পেপার দেওয়া হবে। নষ্ট হওয়া ব্যালট পেপার বাতিল করা হবে।

যদি কোনো প্রার্থী বৈধ ভোটের অর্ধেকের বেশি ভোট পান, তাহলে রিটার্নিং কর্মকর্তা তাৎক্ষণিকভাবে তাকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ঘোষণা করবেন। কোনো প্রার্থী যদি বৈধ ভোটের অর্ধেকের বেশি না পান তাহলে এই কার্যক্রম কিছুটা বাড়ানো হবে। তারপর সবচেয়ে কম ভোট পাওয়া প্রার্থীকে প্রতিযোগিতা থেকে বাদ দেওয়া হবে। প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়া প্রার্থীকে যেসব সদস্য প্রথম পছন্দ হিসেবে ভোট দেবেন এবং তারা যদি দ্বিতীয় পছন্দ হিসেবে কাউকে ভোট দিয়ে থাকেন তাহলে সেই ভোট দ্বিতীয় পছন্দের প্রার্থীর ভোট হিসেবে যুক্ত হবে।

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...