বাইডেনকে ফের ক্ষমতায় দেখতে চান না মার্কিনিরা

ক্ষমতার দুবছর না যেতেই ভাটা পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জনপ্রিয়তায়। বাইডেনকে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় দেখতে চান না মার্কিনিরা। বাইডেনের ওপর আর আস্থা নেই তার নিজ দল ডেমোক্রেটিক পার্টিরও। আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাকে প্রার্থী হিসেবে পছন্দ নয় দলের অধিকাংশ নেতাকর্মীর। এক জনমত জরিপে উঠে এসেছে এমন তথ্য।

সোমবার প্রকাশিত নিউ ইয়র্ক টাইমস-সিয়েনা কলেজের জরিপে দেখা যায়, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের জনপ্রিয়তা আছে মাত্র ৩৩ শতাংশ। শুধু যুক্তরাষ্ট্রের সাধারণ নাগরিকরাই না, নিজ দলের মাঝেও বিরোধিতার মুখে পড়েছেন জো বাইডেন। যা মোটেই স্বাভাবিক নয়।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে মাত্র ২৬ শতাংশ ডেমোক্র্যাট চাচ্ছেন জো বাইডেন পরবর্তী নির্বাচনে অংশ নিন। বাকি ৬৪ শতাংশ ডেমোক্র্যাট সমর্থক চান আগামী নির্বাচনে নতুন প্রার্থী। এতে করে ২০২০ সালের নির্বাচনের সমর্থনকারীদের গ্রহণযোগ্যতাও হারিয়েছেন বাইডেন।

৭৯ বছর বয়সী বাইডেন পরবর্তী নির্বাচনে জিতলে ২০২৫ সালে তার বয়স দাঁড়াবে ৮২ বছরে। সে বিবেচনায় শারীরিক ও কাজের দক্ষতা আশানুরূপ না হওয়ার শঙ্কা দলীয় কর্মী সমর্থকদের। তাই সক্ষম নতুন প্রার্থী দলের জন্য সুফল বয়ে আনবে বলে মত তাদের।

যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইও অঙ্গরাজ্যের দ্য অ্যাক্রন বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ডেভিড কোহেন বলেছেন, জরিপে বাইডেনের পক্ষে যে সংখ্যাগুলো ওঠে এসেছে, তা রীতিমতো ভয়ঙ্কর। জরিপে তরুণদের মধ্যে বাইডেনের জনপ্রিয়তা কমেছে ব্যাপক । ১৮-২৯ বছর বয়সী তরুণদের কাছে বাইডেনের জনপ্রিয়তা কমে ১৯ শতাংশে নেমে এসেছে। তরুণ এই ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে ৯৪ শতাংশ চান আগামী নির্বাচনে অন্য কাউকে প্রেসিডেন্টে হিসেবে মনোনয়ন।

অনেক ডেমোক্র্যাট পরবর্তী নির্বাচনে বাইডেনকে প্রার্থী চাচ্ছেন না মর্মে বেশ কয়েকটি মার্কিন মিডিয়ায় খবর প্রকাশ হওয়ায় এ জরিপ চালানো হয় বলে জানা যায়। যদিও নির্বাচনের সময় থেকেই বিরোধী দল রিপাবলিকান দাবি করে আসছে, স্মৃতিভ্রমের সমস্যায় ভুগছেন বাইডেন। তবে সেই দাবি উড়িয়ে দিয়ে ডেমোক্র্যাটদের পক্ষ থেকে জানানো হয় সম্পূর্ণ সুস্থ বাইডেন। শারীরিক সমস্যা ছাড়াও নানা প্রতিকূলতার মধ্যে রয়েছেন বাইডেন।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে ইউক্রেনকে শেষ পর্যন্ত সাহায্য করার ঘোষণা, গ্যাসসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্রমাগত মূল্যবৃদ্ধি, অব্যাহত বন্দুক হামলা, গর্ভপাত নিষিদ্ধ করে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের রায়, অর্থনীতি ও মুদ্রাস্ফীতি, অভিবাসন সংকটসহ নানা চ্যালেঞ্জ রয়েছে বাইডেনের সামনে।

করোনাভাইরাস মহামারি, ক্রমবর্ধমান সামাজিক বিভেদ, বর্ণবাদ বৈষম্য, অভিবাসন সংকট, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার নিয়ে এক চরম অনিশ্চিত অবস্থার মধ্যে তিনি। ডেমোক্র্যাটিক পার্টিকে যারা প্রায় চিরকাল ভোট দিয়ে এসেছে সেই কৃষ্ণাঙ্গ, লাতিনো, নারী এবং তরুণ জনগোষ্ঠী সমর্থকরাই এখন হতাশ যে বাইডেন ভালো করতে পারছেন না।

এতকিছুর পরও ৭৯ বছর বয়সী মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও ডেমোক্র্যাট পার্টির হয়ে লড়তে চান বলে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি জানিয়েছেন।

 

অর্থসূচক/এমআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...