খেতে পারছেন না জাস্টিন বিবার

মুখ প্যারালাইজড হয়ে যাওয়ার পর এবার কানাডীয়ান সংগীত তারকা জাস্টিন বিবার জানালেন, “খেতে অনেক কষ্ট হচ্ছে। এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। আমার জন্য প্রার্থনা করুন।”

শনিবার (১১ জুন) বিবার ইন্সটাগ্রামে নিজের শারীরিক অবস্থা নিয়ে এক বার্তার এ খবর জানান। খবরে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ইনসাইডার

চিকেনপক্স ও দাউদ সংক্রমিত  ব্যাকটেরিয়া থেকে উৎপত্তি রামসে হন্ট সিন্ড্রোমে আক্রান্ত ২৮ বছরের বয়সী এই সংগীত তারকা। তিনি ‘হতাশ’ হয়ে লিখেন, এটা দিন দিন বাড়ছে। যতই দিন যাচ্ছে, ততই খাবার খাওয়াটা কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সবাই আমার জন্য প্রার্থনা করুন।

এর আগে শুক্রবার (১০ জুন) নিজের স্বাস্থ্য নিয়ে প্রথম টুইট করেন এই তারকা। এ টুইটে তিনি ভক্তদের জানান, তোমরা ভিডিওতে দেখতে পাচ্ছ যে এই (ডান) চোখটি নড়াচড়া করছে না। ডান দিকে করে আমি হাসতে পারছি না। আমার নাক দিয়ে শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে।

প্রতিবেদনে জানা যায়, তার ডান দিক সম্পূর্ণ প্যারালাইজড হয়ে যাওয়ায় তিনি বেশ কয়েকটি কনসার্টকেও না করে দিয়েছেন। তার মুখের ডান অংশ বেঁকে যাওয়ায় তিনি কানেও শুনতে পাচ্ছেন না। ধীরে ধীরে তার শ্রবণ শক্তিও কমে আসছে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি চেষ্টা করছি আগের মত ফিরে আসার। এ জন্য আমার বিশ্রামের দরকার, সময়ের দরকার। তবে তিনি কখন সুস্থ হয়ে ফিরবেন সে ব্যাপারে কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমার উল্লেখ করেন নি।

ইনসাইডারের খবরে জানা গেছে, তিনি রামসে হন্ট সিন্ড্রমের পরীক্ষা-নিরিক্ষা করিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের সবচেয়ে জনপ্রিয় হাসপাতাল, মেও ক্লিনিক জানিয়েছে, ভ্যারিসেলা ঝোস্টার নামক ভাইরাস থেকে রামসে হন্ট রোগটির উৎপত্তি। এটি হলে সচরাচর আক্রান্ত ব্যক্তি কানে শুনেন না, খাবারে রুচি হারান এবং মুখের একপাশ প্যারালাইজড হয়ে যায়। তবে চিকিৎসার মাধ্যমে রোগের নিরসন ঘটলেও প্যারালাইসিস দীর্ঘস্থায়ী হয়।

 

অর্থসূচক/এইচডি/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...