আইপিওর আবেদন করতে লাগবে বাড়তি বিনিয়োগ

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) শেয়ার কেনার জন্য আবেদন করতে হলে সেকেন্ডারি বাজারে থাকতে হবে আগের চেয়ে বাড়তি বিনিয়োগ। সেকেন্ডারি বাজারে সর্বনিম্ন ৫০ হাজার টাকার বিনিয়োগ না থাকলে নিবাসী বিনিয়োগকারীরা আইপিওতে আবেদন করতে পারবেন না।

পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতার স্বার্থে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন  (বিএসইসি) ন্যুনতম বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়িয়েছে।

আজ বুধবার (৮ জুন) অনুষ্ঠিত বিএসইসির ৮২৬তম কমিশন সভায় ন্যুনতম বিনিয়োগের সীমা বাড়ানোর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

একই সভায় অনিবাসী বাংলাদেশীদের (Non Resident Bangladeshi-NRB) ন্যুনতম বিনিয়োগ সীমাও বাড়ানো হয়েছে।

বিএসইসি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

সিদ্ধান্ত অনুসারে, এখন থেকে আইপিওতে আবেদনের ক্ষেত্রে  সেকেন্ডারি বাজারে সংশ্লিষ্ট অনিবাসী বাংলাদেশীর কমপক্ষে ৫০ হাজার টাকা বিনিয়োগ থাকতে হবে। এতদিন ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ থাকলেই চলতো। নতুন শর্তের কারণে বিনিয়োগকারীদেরকে বাড়তি ৩০ হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

অন্যদিকে এনআরবিদের ক্ষেত্রে আইপিওতে আবেদনের জন্য কমপক্ষে ১ লাখ টাকা বিনিয়োগ থাকতে হবে সেকেন্ডারি মার্কেটে।

পুঁজিবাজারে তারল্য বৃদ্ধি,  সাধারণ বিনিয়োগকারীদের দীর্ঘ মেয়াদী বিনিয়োগ অভ্যাস গড়ে তোলা এবং প্রকৃত বিনিয়োগকারীদের আইপিও আবেদনের সুযোগ করে দেওয়ার লক্ষ্যে আলোচিত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন।

 

 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...