সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: উদ্ধারকাজে যোগ দিচ্ছে সেনাবাহিনী

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বেসরকারি একটি কনটেইনার ডিপোতে আগুনের পর ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৮ জনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দগ্ধ ও আহত দেড় শতাধিক ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে বেসরকারি বিএম কনটেইনার ডিপোতে লাগা আগুন গেলো ১২ ঘণ্টাতেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সেখানে অগ্নিনির্বাপন ও উদ্ধার তৎপরতায় কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ২৪টি ইউনিট। এবার তাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে সেনাবাহিনী।

রোববার (৫ জুন) সকালে চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আশরাফ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে দুইশ সদস্যের একটি সেনাবাহিনীর দল ঘটনাস্থলে যাবে। তারা মূলত রাসায়নিক তরল যাতে বাইরে ছড়িয়ে না পড়ে- সে বিষয়টি নিশ্চিত করবে। আর কিছুক্ষণের মধ্যে সেনাবাহিনীর টিম ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছাবে। অগ্নি নির্বাপণ থেকে শুরু করে পরবর্তী উদ্ধার কার্যক্রমও সেনাবাহিনী পরিচালনা করবে।

এর আগে গতকাল শনিবার রাতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের তিন কর্মীসহ অন্তত ১৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কসংলগ্ন সীতাকুণ্ডের শীতলপুর এলাকায় ৭০ কানি জায়গার ওপর কনটেইনার ডিপোটি অবস্থিত।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোনাইছড়ির কদমরসুল এলাকায় অবস্থিত ওই কনটেইনার ডিপোতে রাত আনুমানিক ৯টার দিকে আমদানিকৃত একটি কনটেইনারে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। অল্পক্ষণের মধ্যেই তা বিভিন্ন কন্টেইনারে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কুমিরা ও সীতাকুন্ড ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেন। রাত ১১টার দিকে আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। তখন হঠাৎ করে একটি কেমিক্যাল বোঝাই কন্টেইনারে বিক শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...