বিদেশ থেকে অবাধে টাকা আনার সুযোগ দিয়েছে সরকার

বৈধ উপায়ে যে কোন অঙ্কের প্রবাসী আয় পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রবাসীরা আড়াই শতাংশ হারে নগদ সহায়তা পাবেন। এতে কোন ধরনের কাগজপত্রের বাধ্য-বাধকতা থাকছে না এক্সচেঞ্জ হাউসগুলোতে।

এর আগে ৫ হাজার ডলার বা ৫ লাখ টাকার বেশি আয় পাঠাতে আয়ের সংশ্লিষ্ট নথিপত্র জমা দিতে হতো। এতে বেশি পরিমাণ অর্থ পাঠাতে পারতেন না বিদেশে থাকা বাংলাদেশিরা।

সরকারের সিদ্ধান্তে বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার (২৩ মে) এই সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এতে বলা হয়েছে, ৫ হাজার ডলার অথবা ৫ লাখ টাকার বেশি প্রবাসী আয়ের ক্ষেত্রে প্রণোদনা প্রদানে রেমিটারের কাগজপত্র বিদেশস্থ এক্সচেঞ্জ হাউস হতে প্রেরণের বাধ্যবাধকতা আছে। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বৈধ উপায়ে দেশে রেমিট্যান্স প্রেরণের বিপরীতে রেমিট্যান্স প্রণোদনা প্রদানে রেমিটারের কাগজপত্র ছাড়াই আড়াই শতাংশ হারে নগদ প্রণোদনা প্রযোজ্য হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন সিদ্ধান্তের ফলে বিদেশ থেকে অবাধে টাকা আনতে আর বাধা নেই। এ নিয়ে বিদেশের এক্সচেঞ্জ হাউসগুলোতে কেউ প্রশ্ন করবে না। প্রজ্ঞাপন জারির দিন অর্থাৎ আজ থেকেই এ নির্দেশনা কার্যকর হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

এর আগে, ১২ মে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড প্রদান শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছিলেন, দেশ থেকে যেসব টাকা দেশের বাইরে চলে গেছে (পাচার হয়েছে), তা আবার ফেরত আসবে। বিদেশে টাকা রাখলে লাভের বদলে ব্যাংকগুলোকে সার্ভিস চার্জ বাবদ টাকা দিতে হয়। এতে লাভের চেয়ে লোকসান বেশি হয়। তিনি আরো বলেন, এমন ব্যবস্থা করবো যাতে সবাই টাকা নিয়ে দেশে ফেরত আসে।

অর্থসূচক/এমএস/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...