পুঁজিবাজার নিয়ে গুজব ছড়ানোর দায়ে গ্রেপ্তার ১

দেশের পুঁজিবাজার নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন পোস্ট করে গুজব ছড়ানোর দায়ে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ।মঙ্গলবার (১৭ মে)  ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে মো. মাহবুবুর রহমান নামে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বুধবার (১৮ মে) পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তথ্য জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিভিন্ন সময় পুঁজিবাজার সম্পর্কিত গুজব সৃষ্টিকারী পোস্ট করে পুঁজিবাজারকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করার প্রেক্ষিতে বিএসইসি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন সাধারণ ডায়েরীর ভিত্তিতে গতকাল (১৭ মে) ডিবি পুলিশের একটি দল মাহবুবুর রহমানকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে গ্রেপ্তার করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অভিযুক্তকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করতে দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করবেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত ১৯ ডিসেম্বর ২০২১ ইং তারিখে মাহবুবুর রহমান নামক জনৈক ব্যক্তি “শেয়ার বাজার ২০২১” নামক ফেসবুক পেজে পোস্ট দেন, “যে যা পারেন সেল দিয়ে বের হয়ে যান। ইনডেক্স ৫৬০০ পর্যন্ত পড়বে ……… পেনিক নয় বাস্তবতা!” বিএসইসির ‘ সোস্যাল মিডিয়া মনিটরিং সেল ’ এর পর্যবেক্ষণে দেখা যায় তিনি ফেসবুক পেজ – এর মাধ্যমে বিভিন্ন সময় শেয়ার বাজার সম্পর্কিত গুজব সৃষ্টিকারী পোস্ট করে শেয়ারবাজারকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করেন। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিভ্রান্ত করে বাজার কারসাজি করাই এসব গুজবের উদ্দেশ্য।

২৩ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে শেরে বাংলা নগর থানায় কমিশনের পক্ষে কমিশনের উপপরিচালক মুন্সী মো. এনামুল হক একটি এজাহার দায়ের করেন। এজাহারে উল্লেখ করা হয়, মোঃ মাহবুবুর রহমান বর্তমানে ক্যাজুয়াল কর্মচারী হিসেবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে কাজ করছেন। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুঁজিবাজার সম্পর্কিত মিথ্যা বানোয়াট তথ্য প্রচার করে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছেন। অভিযুক্ত ব্যক্তি উল্লিখিত কার্যকলাপের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের প্ররোচনা ও প্রলুদ্ধ করে বে-আইনীভাবে লাভবান হয়ে আসছেন। এরূপ কার্যকলাপের মাধ্যমে অভিযুক্ট ব্যক্তি ও তার সহযোগীরা পুঁজিবাজারকে প্রভাবিত করাসহ সমূহ ক্ষতিসাধন করছেন, যা পুঁজিবাজার তথা বিনিয়োগকারী এবং সার্বিকভাবে রাষ্ট্রের স্বার্থবিরোধী কার্যক্রম বটে।

পুঁজিবাজারে এরূপ চক্র বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অভিনব উপায়ে বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি করত। পুঁজিবাজারকে প্রভাবিত করার মাধ্যমে ও স্বীয় অসুদ্দেশ্য চরিতার্থ করার নিমিত্ত বিভিন্ন অপকর্ম করছে , যে কারণে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বিতর্কসহ আইনশৃঙ্খলা ভঙ্গ হবার সম্ভাবনা আছে বলে এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়।

মাহবুবুর রহমান উল্লেখিত ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে পুঁজিবাজার সংক্রান্ত বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করে গুজব সৃষ্টির মাধ্যমে প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের প্ররোচনা করত। প্রতারণার জালে ফেলছে বলে এজাহারে বর্ণনা করা হয়।

ফেসবুক , হোয়াটস অ্যাপসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুঁজিবাজার নিয়ে গুজব রটনাকারীদের চিহ্নিত করতে ‘সোস্যাল মিডিয়া মনিটরিং সেল’ গঠন করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন ( বিএসইসি )।

বিএসইসি’র মার্কেট সার্ভিল্যান্স অ্যান্ড ইন্টেলিজেন্স ডিপার্টমেন্টের (এমএসআইডি ) কমিশনার অধ্যাপক ড . শেখ শামসুদ্দিন আহমেদের তত্ত্বাবধানে এ ‘সোস্যাল মিডিয়া মনিটরিং সেল ’ এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। পুঁজিবাজারে গুজব নিযন্ত্রণে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিযন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের ডিজিটাল সিকিউরিটি এজেন্সির সঙ্গে সমন্বিতভাবে কাজ করে আসছে বিএসইসি। ইতোমধ্যে বিএসইসির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ৩১টি গুজব সৃষ্টিকারী ফেসবুক আইডি নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে গুজব সৃষ্টিকারী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সব আইডির বিরুদ্ধে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে কাজ করছে কমিশন।

অর্থসূচক/এমআর/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...