রেলমন্ত্রী স্বীকার করলেন টিকিট ছাড়া ব্যক্তিরা তাঁর আত্মীয়

অবশেষে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন স্বীকার করেছেন যে সম্প্রতি টিকিট না নিয়ে যে তিনজন যাত্রী ট্রেনে ওঠেছিলেন এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের টিকিট নিরীক্ষক (টিটিই)তাদের জরিমানা করেছিলেন, তারা ছিলেন তাঁর আত্মীয়।

রবিবার (৮ মে) ঢাকা রেলভবনের সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, যে মহিলাটি টিটিই শরীফের বিরুদ্ধে কুর্নিশ করেছিলেন তিনি হলেন রেলমন্ত্রীর স্বয়ং স্ত্রী। তিনি বলেন, “আমি জানতাম না গতকাল (৭ মে) পর্যন্ত, যাদেরকে টিকেট না নেওয়ার অপরাধে জরিমানা করা হয়েছে তারা আমার স্ত্রীর আত্মীয়”, এবং “আমার স্ত্রী সেই টিটিইকে বরখাস্ত না করার জন্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছেন” ।

জানা গেছে, সংশ্লিষ্ট টিটিইকে তাঁর কার্যে বহাল রাখা হয়েছে। এছাড়া রেলওয়ের পাক্ষী ডিসিও নাসির উদ্দিনকে শোকজ করা হয়েছে।

সম্মেলনে মন্ত্রীকে টিআইবির প্রতিক্রিয়া সম্বন্ধে জানতে চাইলে তিনি বলেন,তাড়াহুড়োর মধ্যেই টিআইবি তার মতামত দিয়েছে। তারা ওই ঘটনায় আমার সংযুক্ততা আছে কি-না তা দেখে নি।

শুক্রবার (৬ মে) ঐ তিনজন যাত্রী টিকিট ছাড়াই ট্রেনে ওঠে যায়। সে সময় ট্রেনের টিটিই টিকেট চেক করতে আসলে যাত্রীরা রেলমন্ত্রীর আত্মীয় বলে পরিচয় দেয়। এটা জেনেও টিটিই তাদেরকে জরিমানা করে ও তাদের সাথে দুর্ব্যবহা্র করে যার জন্য টিটিইকে বহিষ্কার করা হয়।

রেলমন্ত্রী গতকাল (৭ মে) দাবি করেছেন যে ঐ তিনজন যাত্রী তাঁর কেউ নন। সাংবাদিকদের প্রশ্নকালে তিনি বলেন, “এরা আমার কেউ না। আমার নাম ভাঙিয়ে কেউ হয়তো সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করেছে”।

রেলের ঘটনা সর্বত্র সমালোচিত হয়েছে। অনেকেই মন্ত্রীর পদত্যাগও দাবি করেছেন।

অর্থসূচক/এইচডি/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...