রুবল দাও গ্যাস নাও

বুধবার থেকে বুলগেরিয়া এবং পোল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়া। জানিয়ে দিয়েছে, ১ এপ্রিল থেকে তাদের প্রাপ্য অর্থ না দেওয়ার কারণেই এই পদক্ষেপ। রাশিয়া জানিয়েছে, ইউরো নয়, তাদের রুবলেই গ্যাসের দাম দিতে হবে।

রাশিয়ার এই পদক্ষেপে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বাকি ইউরোপ। জার্মান প্রেসিডেন্ট বলেছেন, গ্যাস বন্ধ করে রাশিয়া ব্ল্যাকমেল করার চেষ্টা করছে। তার বক্তব্য, গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের যে চুক্তি আছে, তাতে কোথাও রুবালে দাম দেওয়ার কথা উল্লেখ করা নেই। ফলে গ্যাস বন্ধ করে রাশিয়া চুক্তিভঙ্গ করেছে।

বুলগেরিয়াও জানিয়েছে, বিষয়টিকে তারা রাশিয়ার চুক্তিভঙ্গ হিসেবেই দেখছে। দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী আলেকজান্ডার নিকোলভ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তারা ইউরোপীয় কমিশনের গাইডলাইন মেনেই চলবেন। রাশিয়ার দাবি অসংগত এবং বেআইনি। তার দাবি, রাশিয়াকে তারা এপ্রিলের দাম ইতিমধ্যেই দিয়ে দিয়েছেন কিন্তু রুবলে দেননি। ফলে নতুন করে রুবলে দাম দেওয়ার প্রশ্ন উঠছে না।

পোল্যান্ডও জানিয়েছে, তারাও রাশিয়াকে রুবলে গ্যাসের দাম দেবে না। বিষয়টিকে তারা চুক্তিভঙ্গ হিসেবেই দেখছে। পোল্যান্ডে জ্বালানিমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাশিয়া যতই হুমকি দিক, তাদের স্টোরেজে ৭৬ শতাংশ গ্যাস পূর্ণ আছে। বিকল্প শক্তি এবং গ্যাসের বিকল্প ব্যবস্থা তারা তৈরি করে রেখেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন। টুইট করে তিনি জানিয়েছেন, ফসিল ফুয়েল নিয়ে ক্রেমলিন যে ব্ল্যাক মেল করবে, ইইউ তা আগেই ধারণা করেছিল। বিকল্প ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে। সার্বিকভাবে রাশিয়ার এই কাজের যোগ্য জবাব দেওয়া হবে।

রাশিয়ার গ্যাসের উপর বিপুলভাবে নির্ভরশীল ইউরোপ। তবে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর বিকল্প ব্যবস্থা তৈরির প্রয়াস শুরু করেছিল ইউরোপের একাধিক দেশ। বিকল্প শক্তির পাশাপাশি অন্য দেশ থেকে তেল এবং গ্যাস নেওয়ার পরিকল্পনাও হয়েছিল। তবে রাশিয়া এত দ্রুত এই পদক্ষেপ নেবে কূটনীতিকদের অনেকেই তা ভাবতে পারেনি। সূত্র: ডিডাব্লিউ, রয়টার্স, এএফপি

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...