তামিম-বিজয়ের সেঞ্চুরিতে ১০ উইকেটে জিতল প্রাইম ব্যাংক

সাদ নাসিমের ৮৫ রানের লড়াকু ইনিংসের পরও করিম জানাত এবং রুবেল হোসেনের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ২২৯ রানের বেশি করতে পারেনি রূপগঞ্জ টাইগার্স। মাঝারি লক্ষ্য তাড়ায় তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয়ের সেঞ্চুরিতে ১০ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) ৪ নম্বর মাঠে জয়ের জন্য ২৩০ রানের মাঝারি লক্ষ্য তাড়ায় দলকে দারুণ শুরু এনে দেন তামিম এবং বিজয়। উইকেট না হারিয়ে প্রাইম ব্যাংকের রান ১০০ স্পর্শ করে ১৪.১ ওভারে। তামিম শুরু থেকে খানিকটা ধীরগতিতে ব্যাটিং করলেও দ্রুতই রান তুলেছেন বিজয়। তাতে ৩৮ বলে পেয়েছেন ডিপিএলের এবারের আসরের অষ্টম হাফ সেঞ্চুরি। বিজয়ের পর হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন তামিমও। বাঁহাতি এই ওপেনারের হাফ সেঞ্চুরি এসেছে ৫৭ বলে। হাফ সেঞ্চু্রির পর রূপগঞ্জের বোলারদের ওপর আরও বেশি চড়াও হতে থাকেন তামিম ও বিজয়।

হাফ সেঞ্চুরি দেরিতে পেলেও তামিম সেঞ্চুরির পেয়েছেন বিজয়ের আগে। ছয়টি ছক্কা এবং নয়টি চারে ৭৭ বলে পেয়েছেন ডিপিএলের এবারের আসরের প্রথম সেঞ্চুরি। প্রথম ৫৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি করা তামিম পরের পঞ্চাশ পেয়েছেন মাত্র ২০ বলে।

তামিমের পর সেঞ্চুরি পেয়েছেন বিজয়ও। ডানহাতি এই ব্যাটারের সেঞ্চুরি এসেছে ৮২ বলে। এর আগে অবশ্য ব্যক্তিগত ৭০ রানের সময় লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর ডিপিএলের এক আসরে প্রথম ব্যাটার হিসেবে এক হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন বিজয়। এদিকে শেষ পর্যন্ত বিজয় ১১২ এবং তামিম ১০৯ রানে অপরাজিত ছিলেন।

এর আগে ব্যাটিং করে ২২৯ রানে অল আউট হয় রূপগঞ্জ। দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৮৫ রান করেছেন নাসিম। এ ছাড়া অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুবের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৮ রান। প্রাইম ব্যাংকের হয়ে চারটি করে উইকেট নিয়েছেন রুবেল এবং করিম।

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...