মানবতাবিরোধী অপরাধ: করোনা আক্রান্ত আসামির বিরুদ্ধে হয়নি সাক্ষ্যগ্রহণ

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার আসামি জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) সাবেক মহাপরিচালক মুহাম্মদ ওয়াহিদুল হক (৬৯) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের নির্ধারিত দিন আজ (১৩ জানুয়ারি) ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে এক প্রতিবেদনের মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওয়াহিদুল হক ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে, আসামি অসুস্থ থাকায় মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ৪ এপ্রিল দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল। কারা কর্তৃপক্ষের প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সদস্য বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলম এ আদেশ দেন। এ সময় ট্রাইব্যুনালে আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার পালোয়ান।

২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল সকালে আসামি ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর রাজধানীর বারিধারার বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে ২৫ এপ্রিল তাকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে ট্রাইব্যুনাল আসামি ওয়াহিদুল হককে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরপর থেকে তিনি কারাগারেই আছেন। এরপর ওই বছরের ৩০ অক্টোবর আসামি ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে তদন্ত সম্পন্ন করে প্রসিকিউশন বরাবর প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৭১ সালের ২৮ মার্চ রবিবার বিকাল আনুমানিক সাড়ে ৪টায় অভিযুক্ত ক্যাপ্টেন ওয়াহিদুল হক রংপুর ক্যান্টনমেন্টে অবস্থিত পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ২৯ ক্যাভেলরি রেজিমেন্টের অ্যাডজুটেন্টের দায়িত্বে থেকে চারটি সামরিক জিপে মেশিনগান লাগিয়ে গুলি বর্ষণ করে রংপুর সেনানিবাস সংলগ্ন এলাকায় ৫শ’ থেকে ৬শ’ স্বাধীনতাকামী বাঙালিকে হত্যা, গণহত্যা ও অসংখ্য মানুষকে গুরুতর আহত করে। গুলিবর্ষণ করে সংলগ্ন এলাকায় বাড়ি ঘরে আগুন দেয়। হত্যা, গণহত্যার শিকার মানুষের লাশ পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে কয়েকটি গর্তে মাটি চাপা দেওয়া হয়।

২০১৯ সালের ৪ মার্চ সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) সাবেক মহাপরিচালক মুহাম্মদ ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আমলে নেয় ট্রাইব্যুনাল। ১৬ অক্টোবর ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এ আদেশ দেন।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...