জয়কে দেখে মনেই হয়নি ও জাতীয় দলে নতুন: মিরাজ

অভিষেক টেস্টে আলো ছড়াতে ব্যর্থ মাহমুদুল হাসান জয়ের ব্যাট হেসেছে নিউজিল্যান্ডে। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টে ধৈর্যের পরীক্ষায় সফল এই তরুণ। অচেনা কন্ডিশন ও বাউন্সি উইকেটে ট্রেন্ট বোল্ট-টিম সাউদিদের বিপক্ষে হাঁকিয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি। ২১১ বলে ৭০ রানে অপরাজিত আছেন জয়।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে সেঞ্চুরি হাঁকানো জয় ২০২০ সালে পেয়েছিলেন বিশ্বমঞ্চে শিরোপা জয়ের স্বাদ। সেই পারফরম্যান্স ধরে রেখেছিলেন ঘরোয়া ক্রিকেটেও। ধারাবাহিক পারফর্ম করার সুফলও পান দ্রুত। আন্তর্জাতিক আঙিনায় অভিষেক হয় পাকিস্তানের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে। তবে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্টে ব্যাট হাতে আশানুরূপ পারফর্ম করতে পারেননি এই তরুণ। কিন্তু নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ঠিকই নিজের জাত চিনিয়েছেন ২০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

মাউন্ট মঙ্গুনুইতে দ্বিতীয় দিন নিউজিল্যান্ডকে ৩২৮ রানে গুটিয়ে দেয় বাংলাদেশ। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে প্রতিপক্ষের বোলারদের সব পরিকল্পনা ভেস্তে দেন জয়-নাজমুল হোসেন শান্ত। দলীয় ৪৩ রানে সঙ্গী হারিয়েই শান্তর সঙ্গে ১০৪ রানের জুটি গড়েন জয়। ব্যক্তিগত ৬৪ রানে শান্তু ওয়েগনারের শিকার হলেও মুমিনুল হককে নিয়ে ইনিংস লম্বা করতে থাকেন জয়। দিন শেষে ফলো-অন এড়ানোর সঙ্গে এই তরুণের ব্যাটে বড় স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।

সংবাদ সম্মেলনে আসা মেহেদি হাসান মিরাজ জানিয়েছেন, ‘আমরা যখন প্রথমে শুরু করেছিলাম আমাদের ৫ উইকেট নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ ছিল। জুটি খুব ভালো হয়েছে। জয়-শান্ত যে জুটি করেছে আলহামদুলিল্লাহ। আমাদের দলের জন্য খুব ভাল হয়েছে। দেখেন বেশ কিছুদিন ধরে আমাদের উপর থেকে কোন জুটি হচ্ছিল না। এই জুটিটা আমাদের আত্মবিশ্বাস দিবে। এখনো আমাদের অনেক কিছু বাকি আছে। আমাদের প্রক্রিয়ার মধ্যে খেলতে হবে।’

‘অবশ্য অনেক ভালো। ইতিবাচক দিক। জয় অনেক ভালো ব্যাট করেছে, ইতিবাচক ছিল। ও যে নতুন এটা ওর ব্যাটিং দেখে মনেই হচ্ছিল না। ও খুব ভাল মানিয়ে নিয়েছে। আমরা জানি জয় খুব ভালো খেলোয়াড়। আন্ডার নাইনটিন চ্যাম্পিয়ন দলের প্লেয়ার। ওখানে ভাল খেলেছে, ঘরোয়াতে ভাল খেলে এসেছে জাতীয় দলে। ওর মাত্রই শুরু, বাংলাদেশকে অনেক কিছু দেয়ার আছে। দলের জন্য ভালো হয়েছে, ওর নিজের ক্যারিয়ারের জন্য ভালো হয়েছে’, আরও যোগ করেন মিরাজ।

এদিকে স্বাগতিকদের ৩২৮ রানে গুটিয়ে দেয়ার পেছনে বড় অবদান রয়েছেন মিরাজের। ৩২ ওভার বোলিং করে ৮৬ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন এই স্পিনার। মূলত নিউজিল্যান্ডের লোয়ার অর্ডারে একাই ধ্বস নামিয়েছিলেন এই স্পিনার। মিরাজ বলেন, ‘আমাদের স্পিনারদের জন্য ভালো। পেস বোলাররাও রান দেয়নি। এই কন্ডিশনে স্পিন বল করা কঠিন ছিল। আমি পুরোটা সময় ধৈর্য্য রাখতে চেয়েছি। ঠিক জায়গায় বল ফেলেছি। তিন রানের নিচে রাখতে চেয়েছি। এটাই হচ্ছে বিষয়।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...