সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বের হয়ে গেলেন ডা. মুরাদ

দেশে ফিরলেও সাংবাদিকদের এড়াতে আন্তর্জাতিক টার্মিনাল ব্যবহার না করে অভ্যন্তরীণ টার্মিনাল দিয়ে চুপিসারে বিমানবন্দর ত্যাগ করেছেন বহুল আলোচিত সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। যদিও এর আগে তিনি সিআইপি গেট ব্যবহার করতেন।

আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) দায়িত্বশীল একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, মুরাদ হাসান বিমানবন্দরের ভিআইপি গেটের সামনে এলেও সাংবাদিকরা অপেক্ষা করছেন দেখে ভেতরে চলে যান এবং বিমানবন্দরের ভেতর দিয়ে ডোমেস্টিক টার্মিনালে যান। সেখানে বাইরে তার জন্য হোন্ডা সিআরভি ব্র্যান্ডের একটি গাড়ি প্রস্তুত ছিল।

দেশে ফেরার সময় তার পরনে ছিল জিন্সের নীল রঙের প্যান্ট, গায়ে ছিল জ্যাকেট। ওই জ্যাকেট দিয়ে তাকে মাথা ও মুখ ঢেকে রাখতে দেখা যায়। ঢাকা থেকে কানাডা যাওয়ার সময়ও তিনি মুখ ঢেকে রেখেছিলেন।

এর আগে বিকেল ৪টা ৫১ মিনিট নাগাদ এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে দেশে ফেরেন মুরাদ। কানাডার পর দুবাইয়ে ঢুকতে চেয়ে ব্যর্থ হয়ে দেশে ফেরেন তিনি।

উল্লেখ্য, ফেসবুক লাইভ টকশোতে নারী বিদ্বেষী বক্তব্য প্রদান এবং চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় ধর্ষণের হুমকি প্রদানের অডিও ক্লিপ ভাইরাল হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গত সপ্তাহে (৭ ডিসেম্বর) মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা ডা. মুরাদ হাসান। এরপর গত বৃহস্পতিবার দেশ ছেড়ে কানাডার উদ্দেশে চলে যান তিনি। দুবাই হয়ে কানাডার টরেন্টো বিমানবন্দরে পৌঁছালেও সে দেশের কর্তৃপক্ষ তাকে বিমানবন্দর থেকেই ফিরিয়ে দেয়। বাধ্য হয়ে মুরাদ হাসান দুবাই ফিরে আসেন। দুবাই বিমানবন্দরে বসে আরব আমিরাতে ঢোকার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু এতেও ব্যর্থ হয়ে শেষমেশ দেশেই ফিরে আসেন তিনি।

অর্থসূচক/এমএস

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...