লেবু ও লেবু পাতা গুনাগুন

লেবুতে রয়েছে  প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি । যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আর শীতের এ সময় এমনিতেই রোগ প্রতিরোধ কমতে শুরু করে। তাই শীতে সুস্থ থাকতে পর্যাপ্ত ভিটামিন সি গ্রহণ করত হবে।

শুধু লেবুই নয় বরং এর পাতাতেও থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি। এ ছাড়াও বিভিন্ন গুণ আছে ছোট ছোট গোলাকার এই পাতার। লেবু পাতার সুগন্ধ সবাইকেই মুগ্ধ করে।এই পাতা দাঁতের হলদে দাগ থেকে শুরু করে কৃমির সমস্যাসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। জেনে নিন কীভাবে লেবু পাতা ব্যবহার করে সমস্যার সমাধান করবেন-

>> দীর্ঘসময় বাসে বা ট্রেনে ভ্রমণকালে বমি হয় অনেকের। এমন ব্যক্তিরা সঙ্গে লেবু পাতা রাখলে মহূর্তেই বন্ধ করা যায় বমি। কারণ লেবু পাতার গন্ধ নিলেই বমি সমস্যার সমাধান করতে পারবেন।

>> সকালে খালি পেটে লেবুপাতার রস খেলে দ্রুত কমবে ওজন। তবে অল্প পরিমাণে খাওয়া উচিত।

>> দাঁত হলদে হয়ে গেলে লেবুপাতার রসের সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে দাঁত মাজুন। দেখবেন মুহূর্তেই পরিষ্কার হবে হলদে দাঁত।

>> কৃমির সমস্যার সমাধানে হতে পারে লেবুপাতা। এই পাতার ১০ গ্রাম রসের সঙ্গে ১০ গ্রাম মধু মিশিয়ে খেলে কৃমির সমস্যাও কমবে।

>> রোদে বের হলেই যাদের মাথাব্যথার সমস্যা হয়, তারা রাতে অল্প পরিমাণে লেবুপাতার রস কপালে মাখতে পারেন। দেখবেন দ্রুত মাথাব্যথা কমবে।

>> লেবুর শুকনো পাতা দিয়ে তৈরি চা খেলে সর্দি-কাশির সমস্যায় দ্রুত স্বস্তি মেলে। এ ছাড়াও এই পাতা মেশানো গরম পানির ভাঁপ নিলে বন্ধ নাক খুলবে ও প্রশান্তি মিলবে।

ত্বকের যত্নেও এই পাতা দুর্দান্ত কাজ করে। এজন্য ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে লেবুর রস ও লেবু পাতার মিশ্রণ মিশিয়ে ফেস মাস্ক তৈরি করুন।যা ত্বকের কালচে দাগ-ছোপ দূর করে ফিরিয়ে আনবে উজ্জ্বলতা। এ ছাড়াও লেবু পাতা বেটে মুলতানি  মাটির সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বকের ব্রণও দূর হয়।পোকামাকড়ের কামড়ে ত্বক ফুলে গেলে বা চুলকানি, অ্যাজমা, অ্যাকজিমার সমস্যা হলে দ্রুত লেবু পাতার নির্যাস উক্ত স্থানে ব্যবহার করলেই মুহূর্তেই মিলবে স্বস্তি।লেবু পাতার নির্যাস শরীরের ক্ষত বা বিভিন্ন কাটা দাগ হালকা করতেও ব্যবহার করতে পারেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...