এই পিচে খেলে বাংলাদেশ কি বিশ্বকাপে ভালো করতে চায়, প্রশ্ন আফ্রিদির

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেট এবং সমালোচনা, গত কয়েক বছরে যেন একই সূত্রে গেঁথে গিয়েছে। ঘরের মাঠে প্রায় প্রতিটি সিরিজেই উইকেটের জন্য সমালোচনা গুনতে হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)। স্লো এবং টার্নিং উইকেটে প্রস্তুতি নিয়ে বিশ্বকাপে ভালো করতে না পারায় আরও একবার প্রশ্ন উঠেছিল টাইগারদের প্রস্তুতির প্রক্রিয়া নিয়ে।

পাকিস্তান সিরিজের আগে ক্রিকেটার কিংবা টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন ভালো উইকেটের প্রত্যাশা করলেও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। যার ফলে বাবর আজমদের বিপক্ষেও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদদের হতাশাজনক পারফরম্যান্স। উন্নতি করতে বাংলাদেশকে ভালো উইকেটে খেলার পরামর্শ দিয়েছেন শহিদ আফ্রিদি।

মিরপুরের স্লো এবং টার্নি উইকেটে দাপট দেখিয়েছে স্পিনাররা। যেখানে নিজেদের মেলে ধরার সুযোগই পাননি ব্যাটাররা। অজিদের বিপক্ষে পুরো সিরিজে একবারও দেড়শ রান পেরোতে পারেনি কোন দল। যেখানে সর্বোচ্চ ১৩১ রান করেছিল বাংলাদেশ। সেটিও তাড়া করতে গিয়ে হেরেছিল অস্ট্রেলিয়া।

নিউজিল্যান্ড সিরিজেও দেখা গিয়েছে একই চিত্র। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ঘরের মাঠে পাকিস্তান সিরিজেও উইকেটের খুব একটা বদল আসেনি। সিরিজের তিন ম্যাচেই দাপট দেখিয়েছে বোলাররা। সদ্য শেষ হওয়া সিরিজে দলীয় সর্বোচ্চ রান ১২৭। সেটিও তাড়া করতে নেমে শেষ বল পর্যন্ত খেলতে হয়েছিল পাকিস্তান। এমন রানহীন টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষে মিরপুরের উইকেটকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। প্রতিভাবান ক্রিকেটার থাকলেও বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতি জন্য ভালো উইকেটে খেলার পরামর্শ দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক এই অধিনায়ক। পাকিস্তানের সিরিজ জয়ের পর এমন টুইট করেছেন তিনি।

আফ্রিদি বলেন, ‘বাংলাদেশকে সত্যিই ভালো উইকেট বানাতে হবে। তারা কি এই পিচে জিততে চায় আর বিশ্বকাপে এবং বিদেশে সাধারণ পারফরম্যান্স দিতে চায়? তাদের একাগ্রতা রয়েছে এবং ভালো প্রতিভা রয়েছে কিন্তু উন্নতি করতে চাইলে আরও ভালো পিচের প্রয়োজন।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর