আইসিসির স্থায়ী প্রধান নির্বাহী হলেন অ্যালারডাইস

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) স্থায়ী প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন জিওফ অ্যালারডাইস। চলতি বছরের মার্চে মানু সোহনীর বিদায়ের পর আইসিসির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছিলেন অ্যালারডাইস।

সাংগঠনিক দায়িত্বের আগে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্রথম শ্রেনির ক্রিকেটে খেলেছেন অ্যালারডাইস। শিক্ষাগত জীবনে সাবেক এই অজি ক্রিকেটারের রয়েছে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিগ্রি। সাংগঠনিক জীবনে ৮ বছর আইসিসির জেনারেল ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেললেও মেলবোর্ন ইউনিভার্সিটির হয়ে ক্লাব ক্রিকেটে খেলেছেন। এ ছাড়াও ১৯৯১ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত ব্যাটার হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যের হয়ে ১৪টি প্রথম শ্রেনির ম্যাচ খেলেছিলেন অ্যালারডাইস। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ডের দীর্ঘদিনের টিমম্যাট ছিলেন আইসিসির শীর্ষ এই কর্মকর্তা।

একবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে সাদারল্যান্ড তাকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আম্পায়ারদের ম্যানেজার হিসেবে যুক্ত করেছিলেন। সেখান থেকেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অপারেশন্স জেনারেল ম্যানেজারের দায়িত্ব পেয়েছিলেন অ্যালারডাইস। ২০১২ সাল পর্যন্তই তিনি এই দায়িত্ব পালন করেছেন।

নতুনভাবে আইসিসির পুরনো দায়িত্ব পেয়ে অ্যালারডাইস বলেছেন, ‘আমার ধারাবাহিক মনোযোগ থাকবে খেলার জন্য সঠিক জিনিসটি করা এবং দীর্ঘ মেয়াদী সাফল্য ও স্থায়িত্বের জন্য সদস্যদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করা। আমি আইসিসির স্টাফদের ধন্যবাদ জানাতে চাই তাদের দায়বদ্ধতার জন্য এবং গত আট মাস আমাকে সাহায্য করার জন্য। আমি আমার প্রতিভাবান দল নিয়ে ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজ করতে চাই।’

আইসিসির চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে বলেছেন, ‘আমি আনন্দিত যে জিওফ আইসিসির স্থায়ী প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব নিতে সম্মত হয়েছে। কঠিন সময়ে সে দারুণভাবে নেতৃত্বের দক্ষতা দেখিয়েছে এবং সফলভাবে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১ সফল করেছে।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •