১ ডিসেম্বরকে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার সুপারিশ

১ ডিসেম্বরকে ‘জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা ও পালনের ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে জাতীয় সংসদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি।

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) কমিটির সভাপতি শাজাহান খানের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ সুপারিশ করা হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক, মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তম, কাজী ফিরোজ রশীদ, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল এবং মোছলেম উদ্দিন আহমদ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় পূর্ববর্তী বৈঠকের সুপারিশসমূহের বাস্তবায়ন ও মুন সিনেমা হলের উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। এছাড়া চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে অবস্থিত ‘জয় বাংলা’ টাওয়ার ও ‘টাওয়ার ৭১’ কল্যাণ ট্রাস্টের নিকট হস্তান্তরের কার্যক্রম বিষয়ক আলোচনা করা হয়।

সভায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার স্থান ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত অন্যান্য স্থানগুলোকে সংরক্ষণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়।

সভায় সম্প্রতি সরকারের উপসচিব ও যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতি বঞ্চিত বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের বিষয়টি সহানুভূতির সহিত বিবেচনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এছাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণে বিদ্যমান সমস্যাসমূহ চিহ্নিত করার লক্ষ্যে কমিটির সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি সংসদীয় সাবকমিটি গঠন করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালক বিভিন্ন সংস্থা প্রধানসহ মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/এমএস