বরিশাল বিভাগে আরও ৯ জনের মৃত্যু

0
82

গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল বিভাগের চার হাসপাতালে আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে উপসর্গ নিয়ে তিনজন এবং করোনায় ছয়জন মারা গেছেন। এ সময়ে শনাক্ত হয়েছে ১৮৭ জনের। আরটিপিসিআর ল্যাবে শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ৫১ শতাংশ।

রোববার (১৭ আগস্ট) বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৪২ হাজার ৬২৪ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৩০ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৫১ হাজার ৬২৬ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রমণ তথ্যে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল জেলায় শনাক্ত হয়েছে ৭৬ জন। এ পর্যন্ত এই জেলায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ৪৬৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৪২১ জন। ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছে ২১১ জন।

পটুয়াখালীতে নতুন শনাক্ত হয়েছে ১৮ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৮৫০ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ১০৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ২৫৫ জন।

ভোলায় নতুন ৪৫ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হলেন ৬ হাজার ১১৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছেন ৭৭ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ১১৪ জন।

পিরোজপুরে নতুন ১৫ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৮৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছেন ৮০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৬১৩ জন।

বরগুনায় নতুন ২১ জন নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬২৮ জন। ২৪ ঘণ্টায় ৩ জনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছেন ৮৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬১৩ জন।

ঝালকাঠিতে নতুন ১২ জন শনাক্ত নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৪৭৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ৬৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৩৩৬ জন।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের তথ্য সংরক্ষক জাকারিয়া খান স্বপন জানান, বিগত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের আইসোলেশনে ১০ জন ভর্তি হন। এর মধ্যে উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ১৪৬ জন চিকিৎসাধীন রোগী আছেন। যার মধ্যে ৫২ জনের করোনা পজিটিভ, ৯৪ জন আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় ১৮৯ জনের নমুনা আরটি পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করানো হয়েছে। এর মধ্যে ৫২ জন পজিটিভ ও ১২৯ জন করোনা নেগেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে তিনজন উপসর্গ ও একজন করোনা রোগী শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মৃত্যুবরণ করেন। এ ছাড়া ভোলা সদর হাসপাতালে একজন এবং বরগুনা সদর হাসপাতালে তিনজন করোনা রোগী মৃত্যুবরণ করেন।

অর্থসূচক/এএইচআর