মেক্সিকোকে হারিয়ে ফাইনালে ব্রাজিল

অলিম্পিকের পুরষ ফুটবলে শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার শেষ ধাপে পৌঁছে গেছে ব্রাজিল দল। টাইব্রেকারে মেক্সিকোকে হারিয়ে টোকিও অলিম্পিকসে তারা উঠেছে ফাইনালে। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে জাপানের কাসিমা স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) শক্তিশালী মেক্সিকোর মুখোমুখি হয়েছে ব্রাজিল।

নির্ধারিত ৯০ মিনিট গোলশূন্য ড্র। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটও ব্রাজিল এবং মেক্সিকোর কেউ কারো জালে বল প্রবেশ করাতে সক্ষম হলো না। খেলা গড়ালো টাইব্রেকারে। সেখানেই নিজেদের জাত চিনিয়ে দিলেন ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা। মেক্সিকোকে ৪-১ গোলে হারিয়ে টোকিও অলিম্পিকের ফাইনালে উঠে গেলো সেলেসাওরা।

টাইব্রেকারে ব্রাজিলের প্রথম চার শটের সবকটিই হয়েছে গোল। কিন্তু মেক্সিকোর নেওয়া প্রথম দুই শটই হয় ব্যর্থ। এদুয়ার্দোর দুর্বল শট ব্রাজিল গোলরক্ষক সান্তোস ফেরানোর পর ইয়োহান ভাসকেস মারেন পোস্টে। মেক্সিকোর তৃতীয় শট নেওয়া কার্লোস রদ্রিগেস জালের দেখা পেলেও ব্রাজিলে চার নম্বর শট নেওয়া হেইনিয়া জালে বল পাঠালে ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত হয় দানি আলভেসের নেতৃত্বাধীন দলটির।

ম্যাচের শুরু থেকে চাপ তৈরি করা ব্রাজিল দশম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো। তবে গিলেরমো আরানার ছয় গজ বক্সের বাঁ থেকে নেওয়া শট রুখে দেন ৩৬ বছর বয়সী অভিজ্ঞ গোলরক্ষক গিলেরমো ওচোয়া। ২৮তম মিনিটে মেক্সিকোর ডি-বক্সে তাদের এক ডিফেন্ডারের চ্যালেঞ্জে দগলাস লুইস পড়ে গেলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। পরে অবশ্য ভিএআরের সাহায্যে পাল্টান সিদ্ধান্ত।

ধীরে ধীরে গুছিয়ে ওঠা মেক্সিকো বিরতির ঠিক আগে সুবর্ণ সুযোগ পায়। কিন্তু ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি উরিয়েল আন্তুনা। তার শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও ছুটে আসা ডিফেন্ডার দিয়েগো কার্লোসে প্রতিহত হয়।

৭৫তম মিনিটে একটি ফাউলের ঘটনায় দুই পক্ষ অহেতুক ধাক্কাধাক্কিতে জড়িয়ে পড়ে। রেফারি এসে পরিবেশ শান্ত করেন।
গ্রুপ পর্বে পাঁচ গোল করা রিশার্লিসন ৮২তম মিনিটে ব্যবধান গড়ে দেওয়ার দারুণ সুযোগ পান, কিন্তু দুর্ভাগ্য বাধ সাধে। দানি আলভেসের ক্রসে ঝাঁপিয়ে এভারটন ফরোয়ার্ডের হেড পোস্টের ভেতরের দিকে লেগেও ভেতরে যায়নি।

২০১২ লন্ডন অলিম্পিকসের ফাইনালে এই মেক্সিকোর কাছে হেরেই প্রথম সোনার পদকের স্বপ্ন ভেঙেছিল ব্রাজিলের। পরের আসরেই ঘরের মাঠে অধরা সেই স্বাদ পায় তারা। এবার লক্ষ্য শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার। ফাইনালে ব্রাজিল খেলবে দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে জাপান ও স্পেনের মধ্যে বিজয়ীর বিপক্ষে।

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...