করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাড়ে ৪ কোটি টাকার সহায়তা ব্র্যাক ব্যাংকের

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
158

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য একটি বিশেষ সিএসআর (সামাজিক দায়বদ্ধতা) উদ্যোগ শুরু করছে ব্র্যাক ব্যাংক। উদ্যোগ বাস্তবায়নে সম্প্রতি ব্র্যাকের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ব্যাংকটি।

আজ (আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে জানানো হয়।

গত এপ্রিল মাসে বাংলাদেশ ব্যাংক, বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং ০৯ এর মাধ্যমে, সকল তফসিলি ব্যাংকদের তাদের ২০২০ সালের মুনাফার এক শতাংশের সমান অর্থ একটি বিশেষ সিএসআর তহবিলে বরাদ্দ করার অনুরোধ জানায়। তহবিল গঠনের উদ্দেশ্য হলো অসহায় মানুষদের প্রয়োজনীয় খাদ্য বা নগদ অর্থ, বা স্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি সামগ্রী, অথবা সন্দেহভাজন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা, অথবা যারা তাদের জীবিকা হারিয়েছে এবং কোভিড-১৯ দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে তাদের আর্থিক সহায়তা দেয়া।

ব্র্যাক ব্যাংক, সেই অনুযায়ী, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলিকে সহায়তা করার জন্য ৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকার একটি তহবিল বরাদ্দ করেছে।

মোবাইল ওয়ালেট বিকাশের মাধ্যমে ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্র্যাক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলিকে অর্থ প্রদান করবে। সারাদেশে প্রায় ৩০,২৬৭ পরিবার এই জরুরি সহায়তা পাবে। প্রতিটি পরিবার ১,৫০০ টাকা করে পাবে যা তাদের দুই সপ্তাহের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্য এবং অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে সহায়তা করবে।

গত রবিবার (১ আগস্ট) শুরু হওয়া এই প্রকল্পের অর্থ বিতরণ আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

কোভিড সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা এবং কঠোর লকডাউনের অধীনে থাকা দশটি জেলাকে এই উদ্যোগে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। জেলাগুলো হলো- খুলনা, সাতক্ষীরা, বগুড়া, মাগুরা, দিনাজপুর, নাটোর, জয়পুরহাট, বাগেরহাট, চুয়াডাঙ্গা এবং চট্টগ্রাম।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিআরপিডি সার্কুলার নং ২৯ অনুযায়ী, মোট তহবিলের ৫০ শতাংশ খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের জেলাগুলোতে এবং বাকি ৫০ শতাংশ অন্যান্য বিভাগের জেলাগুলোয় বরাদ্দ করতে হবে।

বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং ০৯ অনুযায়ী বিভাগ-ওয়ারী বরাদ্দকৃত অর্থের ৫০ শতাংশ সিটি কর্পোরেশন এলাকাসমূহের বস্তিবাসী, ছিন্নমূল এবং করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে সাময়িকভাবে বেকার হয়ে পড়া ব্যক্তিদের পরিবারের জন্য এবং অবশিষ্ট ৫০ শতাংশ জেলা/উপজেলা/ইউনিয়ন পর্যায়ে বিভিন্ন জেলার হতদরিদ্র, সাময়িক কর্মহীন এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠী যারা করোনাভাইরাসজনিত রোগ বিস্তারের কারণে স্বাভাবিক জীবন-জীবিকা নির্বাহে অসমর্থ বা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তাদের জন্য ব্যয় করতে হবে।

ব্র্যাকের দক্ষ মাঠকর্মীরা কঠোর প্রক্রিয়া অনুসরণ করে সহায়তাগ্রহণকারী পরিবারগুলো চিহ্নিত করেছেন। প্রবীণ সদস্য সহ পরিবার, গর্ভবতী এবং স্তন্যদানকারী মা, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তি, নারীদের উপার্জনের উপর নির্ভরশীল পরিবার, অতি দরিদ্র পরিবার এবং যারা অন্যান্য উৎস থেকে সহায়তা পাননি তাদেরকে এই উদ্যোগে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

ব্র্যাকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আসিফ সালেহ বলেন, “ব্র্যাক ব্যাংকের এই সময়োপযোগী সহায়তা অবশ্যই প্রশংসার দাবীদার। এর ফলে ব্র্যাকের ‘ডাকছে আবার দেশ’ উদ্যোগে সেই সকল অবহেলিত পরিবারের জন্য খাদ্য সহায়তা প্রদান সম্ভব হবে যাদের জন্য চলমান লকডাউন খুব কঠিন প্রমাণিত হচ্ছে। আমি আশা করছি যে আরও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসবে, যেন এই মহামারীর সময় অসহায় ও দুস্থ পরিবারগুলিকে আমরা একে অপরের শক্তি কাজে লাগিয়ে সাহায্য করতে পারি।”

ব্র্যাক ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও সেলিম রেজা ফরহাদ হোসেন বলেন, “আমরা কোভিড- আক্রান্ত পরিবারদের সহায়তা করার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিকল্পনা ও নির্দেশনাকে স্বাগত জানাই। তাদের দিক-নির্দেশনা অনুসরণ করে, প্রকৃত অভাবগ্রস্ত পরিবারের কাছে পৌঁছানোর এই বিশাল কাজ সম্পাদনে সহায়তা করার জন্য ব্র্যাক-কে ধন্যবাদ জানাই। ব্র্যাক ব্যাংকের লক্ষ্য সমাজের কেউ যেন পিছিয়ে না থাকে, আর তাই যেকোনো কঠিন সময়ে দেশের মানুষের পাশে দাঁড়াতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

অর্থসূচক/এমএস