ভেস্তে গেলো পুরানের ঝড়ো ইনিংস

0
91

১৫৮ রানের মাঝারি লক্ষ্য তাড়া করতে নামলেও মন্থর ব্যাটিংয়ে সহজ সমীকরণ কঠিন করেন তোলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা। মোহাম্মদ হাফিজের ক্যারিয়ার সেরা মিতব্যয়ী বোলিংয়ে স্বাগতিকদের চেপে ধরেছিল পাকিস্তান। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জয়ের আশা দেখিয়েছিলেন নিকোলাস পুরান। তবে শেষ তিন বলে ১৮ রানের কঠিন সমীকরণ মেলাতে পারেননি এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

শাহীন শাহ আফ্রিদির শেষ দুই বলে একটি করে ছক্কা ও চার মারলেও দলকে জেতাতে পারেননি তিনি। শেষ পর্যন্ত ক্যারিবীয়রা ১৫০ রানে থামলে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ৭ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাঁদের। এদিকে প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে গেলেও দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো সফরকারী পাকিস্তান।

জয়ের জন্য ১৫৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইনিংসের প্রথম ওভারেই আন্দ্রে ফ্লেচারকে সাজঘরে পাঠান হাফিজ। তিনে নামা ক্রিস গেইল ফেরেন পাওয়ার প্লের ষষ্ঠ ওভারে। এক ছক্কায় ২০ বলে ১৬ রান করা গেইলকে ফেরান হাসান আলি।

পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেটে ৩১ রান তোলা ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলেছে ২২টি ডটবল। যেখানে ক্যারিবীয়দের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন হাফিজ। পাওয়ার প্লেতে তিন ওভারের স্পেলে মাত্র ৫ রান দিয়েছিলেন এই অফ স্পিনার। সেই সঙ্গে তুলে নেন ফ্লেচারের উইকেট। শেষ পর্যন্ত ৪ ওভারের কোটা পূরণ করা হাফিজ দিয়েছেন মোটে ৬ রান। এভিন লুইসের বিপক্ষে একটি মেইডেন ওভারও রয়েছে তাঁর। টেস্ট খেলা দেশগুলোর মাঝে অষ্টম বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে ১.৫০ ইকোনমি রেটে বল করেছেন ডানহাতি এই অফ স্পিনার।

৯ ওভারে দলীয় রানের হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ হয় স্বাগতিকদের। পাওয়ার প্লের পর থিতু হলেও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি শিমরোন হেটমায়ার। এক চারে ১৮ বলে ১৭ রান করা হেটমায়ারকে সাজঘরে ফেরান মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র। ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নেমে প্রত্যাশিত বড় শট খেলতে পারেননি এভিন লুইস।

থিতু হয়ে বড় শট খেলার পরিবর্তে ইনিংসের ১৪তম ওভারের শেষ বলে ক্র্যাম্প নিয়ে মাঠ ছাড়েন বাঁহাতি এই ওপেনার। প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটার আগে সমান সংখ্যক দুটি করে চার ও ছক্কায় ৩৩ বলে ৩৫ রান করেছেন লুইস। শেষ দিকে পুরান ৩৩ বলে অপরাজিত ৬২ রান করলেও সেটি কেবলই হারের ব্যবধান কমিয়েছে। যা তাঁর ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। এর আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ৫৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। ইনিংসটি খেলতে ছয়টি ছক্কা ও চারটি চার মেরেছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। পাকিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নিয়েছেন হাফিজ, শাহীন আফ্রিদি, হাসান এবং ওয়াসিম জুনিয়র।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। সফকারীদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেছেন অধিনায়ক বাবার আজম। এ ছাড়া মোহাম্মদ রিজওয়ানের ব্যাট থেকে এসেছে ৪৬ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ২৬ রানে চারটি উইকেট নিয়েছেন জেসন হোল্ডার।

অর্থসূচক/এএইচআর