আপনার ফোনে পেগাসাস আড়ি পাতছে নাতো?

অর্থসূচক ডেস্ক

0
154

ইসরায়েলের এনএসও গ্রুপের তৈরি পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে বিশ্বের অর্ধশতাধিক দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের স্মার্টফোনে আড়ি পাতা হয়। সেই ঘটনা একযোগে প্রকাশ করে ১৭টি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। সেই অনুসন্ধানী প্রতিবেদনগুলো তৈরিতে কারিগরি সহায়তা দিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এই মানবাধিকার সংগঠনই স্মার্টফোনে পেগাসাসের উপস্থিতি পরীক্ষা করার টুলকিট দিয়েছে। সেটির নাম মোবাইল ভেরিফিকেশন টুলকিট, সংক্ষেপে এমভিটি। সঙ্গে ব্যবহারের বেশ লম্বা–চওড়া নির্দেশিকাও প্রকাশ করেছে অ্যামনেস্টি।

অ্যাপলের আইওএস এবং গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমচালিত ডিভাইসে কাজ করে মোবাইল ভেরিফিকেশন টুলকিট। তবে অ্যান্ড্রয়েডের তুলনায় আইফোনে যে বেশি নির্ভুল ফল পাওয়া যায়, তা অ্যামনেস্টির নির্দেশিকায়ই বলা হয়েছে।

গবেষকদের দাবি, অ্যানড্রয়েড সেটগুলো থেকে আইফোনের সেটগুলোতে যেহেতু বেশি ফরেনসিক সাইনের অ্যাক্সেস রয়েছে তাই আইফোনে পেগাসাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণগুলো তাড়াতাড়ি শনাক্ত করা যায়।

পেগাসাস সাইন খুঁজে বের করার জন্য, প্রথমেই ব্যবহারকারীকে নিজের ফোনের সব তথ্য ব্যাকআপে রাখতে হবে। এরপর এমভিটি ডেক্রিপ্টের সাহায্যে ফোনের তথ্যগুলোকে দেখতে হবে যে, তার মধ্যে পেগাসাসের ইন্ডিকেটর রয়েছে কি না! তবে আইফোনের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ডাম্প ফাইল সিস্টেম পেগাসাস বিশ্লেষণের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমানে এমভিটি’র কিছু কমান্ড লাইনের জ্ঞান দরকার যাতে সময়ের সঙ্গে একটি গ্রাফিকাল ইউজার ইন্টারফেস পাওয়া যেতে পারে। এই টুল কোডটি একটি ওপেন সোর্স এবং হিটহাব আইটি সার্ভিসে এর সবকিছু পাওয়া যাচ্ছে। একবার ব্যাক আপ তৈরি হলে এমভিটি ডোমেইন ও বাইনারির সাহায্যে পরিচিত কিছু সূচক ব্যবহারের মাধ্যমে পেগাসাসের উপস্থিতি খুঁজে বের করার চেষ্টা করে।

এই টুল ডিক্রিপ্টিং আইওএস ব্যাকআপ তৈরি করতে পারে যদি সেটা এনক্রিপটেড থাকে। এছাড়াও এটি পর্যবেক্ষণ করতে পারে অ্যানড্রয়েড ডিভাইসে ইনস্টল করা অ্যাপ্লিকেশনের ডেটাগুলোকে।

তবে দুটো কথা বলে রাখা ভাল। প্রথমত, ফোনে পেগাসাস স্পাইওয়্যার ইনস্টল করার খরচ কম নয়। অন্যান্য ম্যালওয়্যারের মতো এটি গণহারে ছড়িয়ে দেওয়া হয়নি। তাই আপনার ফোনে পেগাসাস থাকতে পারে ভেবে আতঙ্কে তটস্থ হয়ে থাকবেন না। দ্বিতীয়ত, এখানে যে পদ্ধতিতে স্মার্টফোনের ডেটা পরীক্ষার কথা বলা হয়েছে, তার জন্য বেশ খানিকটা কারিগরি জ্ঞানের প্রয়োজন। সেটাও মাথায় রাখা জরুরি।

অর্থসূচক/কেএসআর