শেষ ম্যাচ জিতে টি-টুয়েন্টি সিরিজ নিজেদের করে নিল টাইগাররা

0
122

আগের ম্যাচে অপ্রত্যাশিত হারের ফলে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে টি-টুয়েন্টি সিরিজ জয়ের বিষয়ে বেশ অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছিল। কিন্তু সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে জয়ের মধ্য দিয়ে সেই অনিশ্চয়তার মেঘ উড়িয়ে দিয়েছে টাইগাররা। তারা ২-১ ব্যবধানে সিরিজটি নিজেদের করে নিয়েছে।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে রোববার তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের ১৯৩ রান ছাড়িয়ে গেছে চার বল বাকি থাকতে।

দেশের মাঠে সর্বোচ্চ রান করেও টি-টোয়েন্টিতে প্রথম সিরিজ জিততে পারেনি জিম্বাবুয়ে। তাদের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে এই সংস্করণে চতুর্থ সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের আগের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয় ছিল দেশের মাটিতে, ২০১৬ সালে ১৬৩ রান পেরিয়ে।

টস জিতে ব্যাটিং বেছে নিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। আর এ সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণ করতে দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন ওয়েসলি মাধেভেরে ও টাডিওয়ানাশে মারুমানি। পাওয়ার প্লেতে দুই জনের ব্যাটে আসে একের পর এক বাউন্ডারি। এক পর্যায় টানা সাত বলে মারেন ছয় চার ও এক ছক্কা।

তবে পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে বিপদজনক হয়ে উঠা এই  জুটিকে ভেঙ্গে দেন। মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। তাকে ক্রস ব্যাটে খেলার চেষ্টায় বোল্ড হয়ে যান মারুমানি। ৬ ওভার স্থায়ী ৬৩ রানের জুটিতে তার অবদান দুটি করে ছক্কা ও চারে ২০ বলে ২৭।

কিন্তু জুটি ভাঙলেও স্বস্তি মেলেনি। পরের ব্যাটসম্যানরাও রানের চাকা দারুণভাবে সচল রাখেন। দু’শ রানের কাছাকাছি (১৯৩) গিয়ে থামে জিম্বাবুয়ের ইনিংস।

বড় রান তাড়া করতে গিয়ে শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। আউট হয়ে যান নাঈম। তবে সৌম্য ও সাকিব ওই ধাক্কা তেমন বুঝতে দেননি। বিশেষ করে সাকিবের চার-ছক্কায় গতিশীল থাকে রানের চাকা।

সাকিবের পর মাঠে নেমে একই গতিতে দলকে এগিয়ে নেওয়ার ভূমিকা কাঁধে নেন মাহমুদউল্লাহ। মাত্র ২৮ বলে সৌম্য-মাহমুদউল্লাহ জুটি ৫০ রানের মাইলফলেকে পা রাখেন।

পরে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়লেও রানের চাকা থামেনি। আর তাতেই জয় এসে ধরা দেয় টাইগারদের হাতে।

সফরে একমাত্র টেস্ট জেতার পর ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। এবার জিতল টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১৯৩/৫ (মারুমানি ২৭, মাধেভেরে ৫৪, চাকাভা ৪৮, রাজা ০, মায়ার্স ২৩, বার্ল ৩১*, জঙ্গুয়ে ১*; তাসকিন ২-০-২৮-০, সাইফ ৪-০-৫০-০, শরিফুল ৪-০-২৭-১, সাকিব ৪-০-২৪-১, নাসুম ৩-০-৩৭-০, সৌম্য ৩-০-১৯-২)।

বাংলাদেশ: ১৯.২ ওভারে ১৯৪/৫ (নাঈম ৩, সৌম্য ৬৮, সাকিব ২৫, মাহমুদউল্লাহ ৩৪, আফিফ ১৪, শামীম ৩১*, সোহান ১*; রাজা ১-০-১৩-০, চাতারা ৪-০-২৭-০, মুজারাবানি ৪-০-২৭-২, মায়ার্স ৪-০-৪২-০, জঙ্গুয়ে ৩-০-৪২-২, মাসাকাদজা ৩.২-০-৩৭-১)।

ফল: বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয়ী বাংলাদেশ

ম্যান অব দা ম্যাচ: সৌম্য সরকার

ম্যান অব দা সিরিজ: সৌম্য সরকার