বীমার শেয়ারে সংশোধনের ঝড়

0
348

পুঁজিবাজারে বীমা খাতের শেয়ারে মূল্য সংশোধনের ঝড় শুরু হয়েছে। আজ বুধবার (২৩ জুন) দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জে এই খাতের শেয়ারে তীব্র দর পতন হয়েছে। শেয়ারের দর হারিয়েছে খাতটির ৯৪ শতাংশ কোম্পানি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দর হারানো শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় ৭টি ছিল বীমা খাতের কোম্পানি।

পুঁজিবাজারে বীমা খাতের ৫০টি কোম্পানি তালিকাভুক্ত। এদের মধ্যে ৪৯টি কোম্পানির শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে আজ। রেকর্ড তারিখের কারণে আজ একটি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন বন্ধ ছিল। লেনদেনে অংশ নেওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে মাত্র ২টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে। কমেছে ৪৭টির দাম।

তবে বীমা খাতের শেয়ারে আজ বড় দর পতন হলেও পতনের ধারাটি শুরু হয়েছে গত সপ্তাহের প্রথম দিকে। শুরুর দিকে মূল্য সংশোধনের হার ছিল বেশ অল্প। কিন্তু টানা কয়েক দিনের সংশোধনে বীমার শেয়ারধারী বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে আজ পতনের মাত্রা তীব্র হয়ে উঠে।

বিশ্লেষকদের মতে, নানা কারসাজির মাধ্যমে বীমা খাতের শেয়ারের দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়ানো হয়েছিল, যা কোম্পানির মৌলভিত্তির সাথে কোনোভাবেই সঙ্গতিপূর্ণ ছিল না। তাই এই খাতের শেয়ারে মূল্য সংশোধন ছিল অনিবার্য। এই খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থার নেওয়া নানা ব্যবস্থার কারণে এই সংশোধন বিলম্বিত হয়েছে।

আজ বীমা খাতের শেয়ারগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মূল্য হারিয়েছে পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স। এই কোম্পানির শেয়ারের দাম ৯ দশমিক ৮২ শতাংশ কমে ১৮২ টাকা ৩০ পয়সা থেকে ১৬৪ টাকা ৪০ পয়সায় নেমেছে। গত এপ্রিল মাসে পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের দাম ছিল ৬০ টাকা। এটির দাম বাড়াতে বাড়াতে গত ১৪ জুন সর্বোচ্চ ২০৮ টাকা তোলা হয়। এরপর থেকেই শুরু হয়েছে মূল্য সংশোধন।

বীমা খাতের প্রায় সব কোম্পানির শেয়ারের মূল্য বৃদ্ধি ও মূল্য সংশোধনের ধারা প্রায় একইরকম। গত ৬ মাসে কোনো কোনো বীমা কোম্পানির শেয়ারের দাম কারণ ছাড়াই ৭ গুণ পর্যন্ত বেড়েছে। আর এক বছরের ব্যবধানে কোনো কোনোটির দাম বেড়ে হয়েছে ১০ গুণ। এদেরই একটি হচ্ছে প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স। গত বছর জুলাই মাসে এই কোম্পানির শেয়ারের দাম ছিল ২০ টাকা। আর গত ১৬ জুন তা উঠেছিল ২০৩ টাকায়। পরে তা কিছুটা কমলেও আজ ফের ২শ টাকা অতিক্রম করেছে। অথচ সর্বশেষ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিল মাত্র ৩ টাকা। ওই বছরে কোম্পানিটি কোনো নগদ লভ্যাংশ দেয়নি, ১৭ শতাংশ বোনাস দিয়েছিল।

আজ শেয়ারের দর হারানো শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে প্রাইম লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৯ শতাংশ, প্রগতি ইন্স্যুরেন্স ৮.৮৩ শতাংশ, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স ৮.৭৪ শতাংশ, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮.৭৭ শতাংশ, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স ৮.২০ শতাংশ এবং রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স ৭ দশমিক ৯৩ শতাংশ কমেছে।