করোনা: ৩৮ দিনে দেশে সর্বনিম্ন শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
160

করোনা মহামারির তাণ্ডবে টালমাটাল বিশ্ব। বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। এর মধ্যে দেশে হঠাৎ করেই করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুতে ব্যাপক উল্লম্ফন হয়। তবে বিগত কয়েকদিন শনাক্ত কিছুটা কমলেও করোনায় মৃত্যু এখনো চোখ রাঙাচ্ছে। সবশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন রোগী শনাক্ত কমলেও মৃত্যু বেড়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে দুই হাজার ৩৪১ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত ৭ এপ্রিল করোনা রোগী শনাক্ত হয় সাত হাজার ৬২৬ জন। যা একদিনে এ যাবতকালের সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড।

আগের সাত দিনে দেশে যথাক্রমে ২৯৫৫, ৩০৩১, ৩৩০৬, ২৯২২, ২৬৯৭, ৩৬২৯ ও ৪০১৪ জন রোগী শনাক্ত হয়।

সর্বশেষ তথ্য অনুসারে দেশে নভেল করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে সাত লাখ ৫৬ হাজার ৯৫৫ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৪ হাজার ৯২৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর পরীক্ষাকৃত এসব নমুনার ৯ দশমিক ৩৯ শতাংশের মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

গতকাল দেশে ২৮ হাজার ২০৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত দেশে মোট ৫৪ লাখ ৪৮ হাজার ৬৫৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর মোট পরীক্ষার ১৩ দশমিক ৮৯ শতাংশ পজিটিভ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।


একনজরে দেশের করোনার চিত্র

নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন: ২৩৪১ জন

মোট আক্রান্তের সংখ্যা: ৭৫৬৯৫৫ জন

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে: ৮৮ জনের

মোট মৃত্যু হয়েছে: ১১৩৯৩ জনের

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন: ৪৭৮২ জন

মোট সুস্থ হয়েছেন: ৬৭৭১০১ জন


গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮৮ জন মারা গেছেন। ১৯ এপ্রিল করোনায় মারা যান ১১২ জন, যা এযাবতকালের সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগে ১৮ এপ্রিল দেশে করোনায় মারা যান ১০২ জন। এছাড়া ২৫, ১৭ ও ১৬ এপ্রিল দেশে করোনায় মারা যান ১০১ জন।

গত সাত দিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন যথাক্রমে ৭৭, ৭৮, ৯৭, ১০১, ৮৩, ৮৮ ও ৯৮ জন।

সর্বশেষ তথ্য অনুসারে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৩৯৩ জনে। মোট শনাক্তকৃত রোগীর বিপরীতে মৃত্যুর হার এক দশমিক ৫০ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও চার হাজার ৭৮২ জন সুস্থ হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা থেকে মোট সুস্থ হয়েছেন ছয় লাখ ৭৭ হাজার ১০১ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

অর্থসূচক/কেএসআর