বোরো সংগ্রহে কোনো সিন্ডিকেট সহ্য করা হবে না: খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
166
ফাইল ছবি

চলতি বোরো মৌসুমে ধান সংগ্রহে কোনো সিন্ডিকেট সহ্য করা হবে না বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেন, ‘সংগ্রহের ক্ষেত্রে ধানের গুণগত মান শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে। এ ক্ষেত্রে কোনো আপস করা হবে না। সে বিষয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের প্রধান দফতর থেকে শুরু করে মাঠ পর্যায়ের সব কর্মকর্তা কর্মচারীদের সতর্কতার সঙ্গে সচেষ্ট থাকতে হবে। সরকার কৃষকদের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করাসহ নানা সুযোগ সুবিধা অব্যাহত রেখেছে।’

বুধবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সারাদেশের সঙ্গে নওগাঁ জেলারও বোরো মৌসুমের ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নাজমানারা খানুমের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নওগাঁ জেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা যুক্ত হয়।

মিল মালিক, খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও খাদ্যগুদামে কর্তব্যরত শ্রমিকদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘সময় মতো চুক্তি সম্পাদন করবেন এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের বিপরীতে দেয়া চাহিদাপত্র অনুযায়ী ধান গুদামে সরবরাহ করতে হবে। কৃষকরা যেন কোনোভাবেই হয়রানির শিকার না হয়। ভালো ব্যবহার করাসহ সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকেই ধান সংগ্রহ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ এ ক্ষেত্রে কোনো সিন্ডিকেট সহ্য করা হবে না।’

জেলা প্রশাসক হারুন-অর-রশীদের সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য দেন- পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান, রাজশাহীর আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক জিএম ফারুখ হোসেন পাটওয়ারী, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ সামশুল ওয়াদুদ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা ইমাম উদ্দিন, জেলা চাল কল মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন চকদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, জেলায় চলতি বোরো মৌসুমে ২৭ টাকা কেজি দরে মোট ২৫ হাজার ৬৯৭ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এরমধ্যে নওগাঁ সদর, মহাদেবপুর এবং নিয়ামতপুর উপজেলায় কৃষকের অ্যাপের মাধ্যমে এবং অন্যান্য উপজেলায় সাধারণ পদ্ধতিতে ধান সংগ্রহ করা হবে।

অর্থসূচক/এমএস