মার্কিন প্রতিষ্ঠান এসআইজি ও বিডি ফাইন্যান্সের মধ্যে সমঝোতা চুক্তি

0
334

গত ৮ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গ্লোবাল ফিন্যান্সিং কোম্পানি সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এসআইজি) এবং বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানী লিমিটেড (বিডি ফাইন্যান্স) এর মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। ওয়াশিংটন ডিসিতে স্বাক্ষরিত এই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য হলো বিডি ফাইন্যান্স এবং সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এসআইজি) এর মধ্যে একটি দীর্ঘমেয়াদী ও সর্বাত্মক সহযোগী সম্পর্ক স্থাপন।

সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ বিডি ফাইন্যন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশের অবকাঠামোগত খাতে প্রায় ২০০ কোটি ডলার অর্থায়ন করার আগ্রহ দেখিয়েছে। সরকার বা পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপে ঋণ ও ইকুইটি সহায়তা এবং বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল বা রফতানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চলে অর্থায়ন করতে চায় এসআইজি। প্রাথমিক পর্যায়ে সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এস আই জি) বিডি ফাইন্যান্সকে ৪ কোটি বিনিয়োগ করতে আগ্রহী যা ব্যাবহৃত হবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা, সবুজ অর্থায়ন প্রকল্প, নারী উদ্যোক্তা,সামাজিক আবাসন ও তৃতীয় লিঙ্গের ব্যাক্তিদের অর্থনেতিক ক্ষমতায়ন ইত্যাদি ক্ষেত্রে।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাসের সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত এই সমঝোতা চুক্তিতে আগেই নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে স্বাক্ষর করেছেন বিডি ফাইন্যান্স-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কায়সার হামিদ এবং সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এসআইজি) এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী ল্যারি নক্স।

এই সমঝোতা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে এই মার্কিন প্রতিষ্ঠানটির স্থানীয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করবে বিডি ফাইন্যান্স। আর সে লক্ষ্যেই সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ এবং বিডি ফাইন্যান্সের মধ্যে পারস্পারিক সহোযোগিতামূলক কাঠামো গঠন করা হবে যা উভয় প্রতিষ্ঠানের পারস্পারিক স্বার্থ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে। এছাড়াও এই চুক্তির মাধ্যমে সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ বিডি ফাইন্যান্সের ন্যুনতম ৪ শতাংশ অংশীদারি হবে এবং সেইসাথে বিডি ফাইন্যান্সের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হওয়ার গৌরব অর্জন করবে।

সমঝোতা চুক্তি সম্পাদন অনুষ্ঠানে সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এসআইজি) এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নিবার্হী ল্যারি নক্স বলেন, ”বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ আমাদের নিকট পছন্দের শীর্ষে। নেক্সট এলেভেনের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ বিশে^র অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল দেশ এবং জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশ বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম দেশ। ২০৪০ সাল নাগাদ অবকাঠামোতে ৪১৭ বিলিয়ন ডলারের একটি চিত্তাকর্ষক বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ এখোনো আকর্ষণীয় স্থান। আমরা এই সমঝোতা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে দীর্ঘ সময় ধরে অবদান রাখার বিষয়ে খুবই আশাবাদী।”

সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ (এসআইজি) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট বেঞ্জামিন লেভিন বলেন,”সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ এবং বিডি ফাইন্যান্সের মধ্যকার আজকের এই সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি একটি মূল্যবান প্রয়াসের সূচনা যা আগামী বছরগুলোতে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখবে।”

বিডি ফাইন্যান্সের চেয়ারম্যান জনাব মানোয়ার হোসেন বলেন, ‘এই সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশের ব্যাংকিং এবং আর্থিক খাতের একটি ঐতহিাসকি ঘটনা হিসেবে স্মরনীয় হয়ে থাকবে। বাংলাদেশে একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের এটি একটি বৃহত্তর বিনিয়োগ প্রচেষ্টা। বাংলাদেশের ৫০তম জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষ্যে এই প্রচেষ্টা আমাদেরকে আরোও কঠোর পরিশ্রমী ও সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলবে। তিনি তার বক্তব্যে বিডি ফাইন্যান্সের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং সমাজসেবী জনাব অনোয়ার হোসেনের প্রতি গভীর শ্রুদ্ধা নিবেদন করেন।”

আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্টিজের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব ওয়ায়েজ হোসেন বলেন, ” বাংলাদেশের আর্থিক সেক্টরের সাথে সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপের মিলবন্ধনে কাজ করতে পেরে ভীষণ আনন্দিত। আমরা বিগত কয়েক দশক ধরে পারিবারিক ব্যবসার মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। তিনি আরোও বলেন, এই চুক্তিটি বিশ^ব্যাপী চলমান প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের অবকাঠামোগত অবস্থান জোরদার করবে এবং বাংলাদেশের শিল্প ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান চাহিদায় সর্বাত্মক সেবা প্রদানের মডেল হয়ে উঠবে।

সভরেইন ইনফ্রাস্ট্রাকচার গ্রুপ বাংলাদেশের যে সব প্রকল্পে বিনিয়োগ করবে তা তারা কেস টু কেস ভিত্তিতে বিনিয়োগের ঝুঁকি মুল্যায়ন করবে। তাদের আগ্রহের বিনিয়োগ প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ সরকার সমর্থিত প্রকল্পসমূহ, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক এবং রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল প্রকল্পসমূহ, সরকারী-বেসরকারী অংশীদারি হিসেবে কাঠামোগত প্রকল্প এবং পারস্পারকি স্বীকৃত র্সাবভৌম, উপ-র্সাবভৌম, কংিবা সরকাররে কাছে চুক্তবিদ্ধ প্রকল্পসমুহ, প্রাপ্যতা প্রদান, বদ্যিুৎ ক্রয়রে চুক্তপিত্র সমূহ। এমনকি জাতিসংঘের টেকসয় উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহের সাথে সামঞ্জস্যর্পুণ অন্যান্য প্রকল্পসমূহেও এসআইজি বিনিয়োগ করবে। আর বিনিয়োগের জন্য প্রনিধানযোগ্য খাত সমূহ হচ্ছে কৃষকিাজ এবং খাদ্য সুরক্ষা, শক্ষিা, শক্ত,ি র্আথকি প্রতষ্টিান, স্বাস্থ্যসবো/হাসপাতাল, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্ত,ি শল্পি উৎপাদন, আঞ্চলকি সহযোগতিা এবং সংহতকরণ, পরবিহণ, নগর উন্নয়ন, পানি উন্নয়ন, পয়ঃনষ্কিাসন ব্যাবস্থা।