পুনরায় ফিলিস্তিনী সহায়তা চালু করছেন বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

0
213

ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য আবারও সহায়তা চালু করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রশাসন এক ঘোষণায় জানিয়েছে, জাতিসংঘের যে সংস্থাটি ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য কাজ করছে তাদেরকে আবারও অর্থ সহায়তা দেয়া চালু করা হবে। এর আগে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালে জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থী সংস্থায় অর্থ সহায়তা বন্ধ করে দেন।

দেশটির পররাষ্ট্র দফতর থেকে বলা হয়েছে, সহায়তা হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র সাড়ে ২৩ কোটি মার্কিন ডলার দেবে। এর মধ্যে ১৫ কোটি ডলার জাতিসংঘ সংস্থায়, সাড়ে ৭ কোটি পশ্চিম তীর ও গাজার অর্থনীতি ও উন্নয়ন সহায়তা হিসেবে এবং শান্তি স্থাপন প্রচেষ্টার জন্য এক কোটি ডলার দেবে।

ইসরাইলপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্পের বিপরীতে দাঁড়িয়ে বাইডেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ফিলিস্তিন বিষয়ক জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থায় তহবিল দেওয়া পুনরায় শুরু করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের মিত্র জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহর সাথে আলোচনাকালে বাইডেন ইসরাইল-ফিলিস্তিন সমস্যা সমাধানের জন্য দ্বি-রাষ্ট্র নীতিতে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (০৭ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন জানিয়েছেন, ইউনাইটেড ন্যাশন্স রিলিফ অ্যান্ড ওয়ার্কস এজেন্সিতে (ইউএনআরডব্লিউএ) ১৫ কোটি ডলার মানবিক সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র।

পশ্চিম তীর, গাজা উপত্যকা, লেবানন এবং জর্ডানে প্রায় ৫৭ লাখ ফিলিস্তিনিকে স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ বিভিন্ন সহায়তা দিচ্ছে ইউএনআরডব্লিউএ। এদিকে পুনরায় মানবিক সহায়তা প্রদানে যুক্তরাষ্ট্রের ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে জাতিসংঘ।

এর আগে ২০১৮ সালে ওই সংস্থাটিকে ‘অবিশ্বাস্যভাবে ত্রুটিপূর্ণ’ একটি সংগঠন হিসেবে অভিহিত করে সহায়তা বন্ধের ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। তৎকালীন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিথার নওয়ার্ট জানান, এই সংস্থাতে আর কোনো অতিরিক্ত অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে না। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে ফিলিস্তিন।

এদিকে ইসরাইল যুক্তরাষ্ট্রের এ উদ্যোগের নিন্দা জানিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে ইসরাইলী দূত বলেছেন, আমরা বিশ্বাস করি তথাকথিত শরণার্থী বিষয়ক জাতিসংঘের এই সংস্থা বর্তমান কাঠামোয় থাকা উচিত নয়।

ইসরাইল বলছে, জাতিসংঘ সংস্থার স্কুলগুলো যে শিক্ষা দেয় তাতে ইহুদি রাষ্ট্র বিরোধিতাকে উস্কে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ইরানের পরমাণু কর্মসূচি বন্ধে ভিয়েনায় যে আলোচনা শুরু হয়েছে তাতে যুক্তরাষ্ট্রের পরোক্ষ অংশগ্রহণে ক্ষুব্ধ ইসরাইল। ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এর ঘোর বিরোধী।

সূত্র: সিএনএন, আল-জাজিরা।

অর্থসূচক/কেএসআর