পুঁজিবাজার ডিজিটালাইজেশনের অনুদান কতদূর

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
407

পুঁজিবাজারের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের কাছে ৭ মিলিয়ন বা ৭০ লাখ ডলার অনুদান চেয়েছে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। অনুদানের এই অর্থ ডিজিটালাইজেশনের জন্য ব্যয় করবে বিএসইসি। এজন্য অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগকে চিঠিও দিয়েছে সংস্থাটি। যা এখন বিশ্বব্যাংকের সংশ্লিষ্ট দফতরে পৌঁছেছে।

অর্থসূচককে বিষয়টি নিশ্চিত করে সোমবার (২২ মার্চ) পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার কমিশনার শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, গত বুধবার (১৭ মার্চ) বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা যেহেতু সরাসরি বিশ্বব্যাংকের কাছে চাইতে পারি না, সে ক্ষেত্রে আমরা আমাদের চিঠি অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের কাছে পাঠিয়েছি। তারা ইকোনমিক রিলেশনস ডিভিশনের (ইআরডি) মাধ্যমে এটি বিশ্বব্যাংকের কাছে পাঠিয়েছে। আশা করছি ভালো ফলাফল আসবে।

তিনি বলেন, ইআরডির কাছ থেকে চিঠিটি বিশ্বব্যাংকের কাছে যাওয়ার পর এখন তারা বিষয়টি দেখছেন। আমাদের যা করণীয় ছিলো আমরা তা করেছি। এখন বাকিটা করবে বিশ্বব্যাংক। তারা আগ্রহী হলে ফাইনাল করবে।

অনুদানের অর্থ ডিজিটালাইজেশনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে উল্লেখ করে বিএসইসির এ কমিশনার বলেন, আমরা বিশ্বব্যাংকের কাছে ৭ মিলিয়ন ডলার অনুদান চেয়েছি। তাদের কাছে এ পরিমাণ খুব বড় না হলেও এই অনুদানটি পেলে আমাদের জন্য অনেক উপকার হবে। আমরা পুঁজিবাজার ডিজিটালাইজেশনের জন্য পুরো অর্থ ব্যয় করবো। যা মার্কেটের জন্য ভালো ফল বয়ে আনবে।

ডিজিটালাইজেশনের জন্য আমরা যতোটা সম্ভব করে যাচ্ছি। আশা করি ভালো ফল আসবে, তবে কিছুটা সময় লাগবে, যোগ করেন কমিশনার শামসুদ্দিন আহমেদ।

এদিকে আজ মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের আয়োজিত ‘স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী: বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের আলোকে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের অর্জন ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, প্রতারণা বন্ধের জন্য তথ্য প্রযুক্তি অনেক অবদান রাখতে পারে। সেই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। পুঁজিবাজারের উন্নতির জন্য অর্থমন্ত্রণালয়কে সঙ্গে নিয়ে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি। খুব শিগগির এই বিষয়ে একটি সুখবর আসবে।

এর আগে রোববার (২১ মার্চ) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র রেজাউল করিম অর্থসূচককে বলেন, ডিজিটালাইজেশনের জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। পুঁজিবাজারের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের কাছে ৭ মিলিয়ন ডলারের যে অনুদান চাওয়া হয়েছে তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতর কাজ করেছে। আমরা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি।

সূত্রমতে, দায়িত্ব নেওয়ার পর পরই ডিজিটালাইজেশনে গুরুত্ব দিয়েছে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বাধীন কমিশন।

জিটালাইজেশন নিয়ে কাজ করার জন্য অর্থমন্ত্রণালয় এবং বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে এই কমিশনের বেশ কয়েকবার আলাপ হয়েছে। প্রতিবারেই প্রযুক্তিগত উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের কাছে সহযোগিতা চেয়েছে কমিশন। সর্বশেষ ২৫ জানুয়ারি (সোমবার) বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম স্বাক্ষরিত এই চিঠি সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠানো হয়েছে।

পুঁজিবাজারে ডিজিটালাইজেশনের গুরুত্ব বুঝিয়ে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। এই মহামারিতে বিশ্বের অনেক দেশের পুঁজিবাজার চালু থাকলেও বাংলাদেশে বন্ধ ছিল ৬৬ দিন।

অর্থসূচক/কেএসআর