করোনার বিরুদ্ধে বিজয়োৎসব করতে চান বাইডেন

0
108

লক্ষ্য ঠিক করে দিলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর করোনা নিয়ে প্রথম ভাষণে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, ‘১ মে-র মধ্যে সব প্রাপ্তবয়স্ককে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শেষ করতে হবে। যদি এই সময়ের মধ্যে সব প্রাপ্তবয়স্ককে ভ্যাকসিন দেয়া সম্ভব হয়, তা হলে ৪ মে স্বাধীনতা দিবসে করোনার বিরুদ্ধে বিজয়োৎসব পালন করবে আমেরিকা।’

বাইডেনের এই ঘোষণা এমন একটা সময় এসেছে, যখন করোনায় আক্রান্ত হয়ে আমেরিকায় পাঁচ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এখন বয়স্ক ও যাদের অন্য রোগ আছে, তাদের টিকা দেয়ার কাজ চলছে। আমেরিকার প্রধান ক্রীড়া প্রতিযোগিতাগুলি অধিকাংশই বাতিল করা হয়েছে।

বাইডেন এখন আবার আমেরিকার মানুষকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চান। তিনি বলেছেন, ‘সকলের সহযোগিতায় ১ মে-র মধ্যে যদি সব প্রাপ্তবয়স্ককে টিকা দেয়া সম্ভব হয়, তা হলে ৪ মে আপনারা পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে আপনার বাড়ির লনে বসে স্বাধীনতার উৎসব করবেন। এটা শুধু দেশের স্বাধীনতা উৎসবই হবে না, কোরনা-মুক্তি বা কোভিড-স্বাধীনতা উৎসবও হবে।’

বাইডেনের পরিকল্পনা, করোনা টিকাকেন্দ্রের সংখ্যা অনেক বাড়ানো হবে। দন্তচিকিৎসক ও পশুচিকিৎসদেরও করোনার টিকা দেয়ার কাজে লাগানো হবে। মোবাইল টিকা কেন্দ্রগুলো বিভিন্ন আবাসিক এলাকায় যাবে। বাইডেনের মতে, লড়াই শেষ হয়নি। ফলে এখন আলগা দিলে চলবে না। আমেরিকার মানুষকে মাস্ক পরতে হবে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং হাত ধুতে হবে। ভাইরাসকে হারিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা সম্ভব হবে।

আইনসভা অনুমোদন করার পর বৃহস্পতিবারই এক দশমিক নয় ট্রিলিয়ান করোনা প্যাকেজে সই করেছেন বাইডেন। এর ফলে করোনার কারণে আমেরিকায় যে লাখ লাখ মানুষ বিপাকে পড়েছেন, তাদের সুবিধা হবে। কারণ, এই মাস থেকেই তারা এক হাজার ৪০০ ডলার সাহায্য পেতে শুরু করবেন।

বাইডেন জানিয়েছেন, আমেরিকা আবার ছন্দে ফিরছে, তবে তার জন্য আমেরিকানদেরও নিজেদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। সূত্র: এপি, রয়টার্স

 

অর্থসূচক/এএইচআর