বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ফিঞ্চ

0
202

ব্যাট হাতে বাজে সময় কাটাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ। ফ্র্যাঞ্চাইজি, ঘরোয়া এমনকি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট- সব জায়গাতেই ব্যর্থ এই মারকুটে ব্যাটসম্যান। তাঁর এমন বাজে ফর্মে প্রশ্ন উঠেছে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তাঁর অধিনায়কত্ব করা নিয়ে।

যদিও ফিঞ্চের খারাপ সময়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন জাতীয় দলের নির্বাচক জর্জ বেইলি। তিনি বলেন, ‘তাঁর (ফিঞ্চ) গড় ভয়ঙ্কর। তবে সে এই দলের অধিনায়ক এবং পরবর্তী বিশ্বকাপেও সে অধিনায়ক থাকবেন। তাঁর সম্পর্কে এই সব সমালোচনা আমার কাছে ফাঁকা আওয়াজ মনে হচ্ছে। টানা বাবলে থাকায় সে কিছুটা ক্লান্ত ছিল। তবে নিউজিল্যান্ডে আমরা সতেজ ফিঞ্চকে পেয়েছি। নেট প্রাকটিসেও সে দারুণ করছে।’

২০১৮ সালের জুনে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব পান ফিঞ্চ। এরপর তাঁর নেতৃত্বে টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ওঠা ছাড়াও ব্যক্তিগত ১৭২ রানের রেকর্ড গড়া ইনিংসটাও খেলেছেন দলের অধিনায়কত্ব কাঁধে নিয়ে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ধুঁকছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৩৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার দলের নেতৃত্ব দেয়ায় ব্যর্থতার পাশাপাশি ব্যর্থ দলের প্রয়োজনে রান করার ক্ষেত্রেও।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) সবশেষ আসরে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে ১২ ইনিংস খেলে মাত্র ২২ গড়ে রান করেছেন ফিঞ্চ। এরপর বিগ ব্যাশ লিগে ১৩ ইনিংসে করেছেন মাত্র ১৭৯ রান। ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ব্যর্থ ফিঞ্চ। চলমান নিউজিল্যান্ড সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র ১২ রান। এই দুই ম্যাচেই তাঁর দল হারায় সমালোচনা তীব্র হয়েছে আরো বেশি।

সমালোচকদের দলে অন্যতম সাবেক নির্বাচক মার্ক ওয়াহ। ফিঞ্চের টানা বাজে ফর্মের কারণে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফিঞ্চ নিজের স্থান হারাবেন মন্তব্য করে সাবেক এই অজি ক্রিকেটার বলেন, তাঁর কাজ রান করা। কোন ব্যাটসম্যানই দল থেকে বাদ পরার উর্ধ্বে নয়। যখন আপনি রান পাবেন না, তখন আপনাকে বাদ পরতে হবে। তাতে মুখ্য নয় যে আপনি দলের অধিনায়ক কিনা। এছাড়া ফিঞ্চের অধিনায়কত্বের সমালোচনায় অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ইয়ান চ্যাপেল। সরাসরি কিছু না বললেও ইতিমধ্যে ফিঞ্চের তিন বিকল্প খুঁজে দিয়েছেন তিনি।

 

অর্থসূচক/এএইচআর