ট্রাম্পের ক্ষমার তালিকায় আরও ১০০ অপরাধী

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার শেষ কর্মদিবসে শতাধিক সাধারণ ক্ষমার আদেশে সই করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এর মধ্যে দণ্ড মওকুফ, বিচার থেকে দায়মুক্তি এবং দণ্ড কমানোর আদেশ রয়েছে।

হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের শেষ মুহূর্তের সহযোগীদের বরাত দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন এই সংবাদ প্রকাশ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ২০ জানুয়ারি শপথ নিতে যাচ্ছেন জো বাইডেন; সে হিসেবে এর আগের দিন মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শেষ পূর্ণ কর্মদিবস। তবে তিনি বাইডেনের শপথ গ্রহণের দিন দুপুরে শপথ নেওয়ার আগপর্যন্ত সাধারণ ক্ষমাপত্রে সই করতে পারবেন।

সিএনএন জানিয়েছে, কারা কারা এই সাধারণ ক্ষমার আওয়ায় আসবেন সে ব্যাপারে হোয়াউট হাউসে একটি বৈঠক হয় রোববার। এতেই নাম চূড়ান্ত হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প এ পর্যন্ত ৯৪ জন সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে মুক্তি দিয়েছেন কিংবা সাজা কমিয়ে দিয়েছেন।

মনে করা হচ্ছে, রাজনৈতিক সহযোগী, আইনজীবী রুডি জুলিয়ানিসহ অনেককেই আগাম সাধারণ ক্ষমা বা বিচারপ্রক্রিয়া থেকে মুক্তি দিতে নির্দেশনা দিতে পারেন ট্রাম্প।

শেষ মুহূর্তে হোয়াইট হাউসে অবস্থান করা কর্মকর্তা ও এর বাইরে থেকেও নানা মাধ্যমে প্রেসিডেন্টের কাছে সাধারণ ক্ষমার অনুরোধ আসছে। হাজার হাজার ডলারের বিনিময়ে লবিস্ট নিয়োগ করেও এই তালিকায় নাম ঢোকানোর তদবির চলছে বলে জানিয়েছে সিএনএন।

গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে নিজের সমর্থকদের সহিংস হামলার কারণে দ্বিতীয় অভিশংসনে পড়েছেন ট্রাম্প। এর ফলে তার নিজেকে ক্ষমা করার প্রক্রিয়াটি জটিল হয়ে পড়েছে বলেও প্রতিবেদন মন্তব্য করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, একই কারণে ট্রাম্পের পরিবারের সদস্য ও ব্যক্তিগত আইনজীবী রুডি জুলিয়ানিকেও ক্ষমার তালিকায় রাখার বিষয়টিও অনিশ্চিত। তবে শেষ মুহূর্তে ট্রাম্প কী করবেন তা কেউই নিশ্চিত নন।

ট্রাম্পের কয়েকজন ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা তাকে ক্যাপিটলে হামলাকারীদের ক্ষমা না করার জন্যে অনুরোধ করেছেন। যদিও ট্রাম্প প্রথমদিকে মনে করতেন যে হামলাকারী ‘ভুল’ কিছু করেননি।

ট্রাম্পের সহযোগী সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম রোববার ফক্স নিউজকে বলেছেন, অনেক অনেক মানুষ তাদেরকে ক্ষমা করার জন্যে ট্রাম্পকে অনুরোধ করছেন। কিন্তু, তাদেরকে ক্ষমা করা উচিত হবে না।

গতকাল নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, অনেকে ক্ষমার তালিকায় নাম ওঠাতে ১০ হাজার ডলার খরচ করে তদবির করছেন।

হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা সিএনএনকে জানিয়েছেন, ট্রাম্পের নিজেকে ক্ষমা করার বিষয়টি নিয়ে এখনো কোনো কাজ করা হয়নি।

এছাড়াও, ক্ষমার শেষ তালিকায় উইকিলিকসের জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ট্রাম্পের সাবেক উপদেষ্টা স্টিভ ব্যানন থাকবেন কি না তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

প্রতিবেদন বলা হয়েছে, এখনো ট্রাম্পের কাছে অনেক নামের অনুরোধ আসছে। ট্রাম্পের সহযোগীরা মনে করছেন, এখন এসব অপরাধীদের ক্ষমা করা হলে ক্ষমতা ছাড়ার পর তারা ট্রাম্পের উপকারে কাজ করতে পারবেন।

অর্থসূচক/কেএসআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...