চ্যাম্পিয়ন বিলবাও, লাল কার্ড দেখা মেসি হতে পারেন নিষিদ্ধ

রোমাঞ্চ ও নাটকীয়তায় ভরা স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে গ্রিজম্যানের জোড়া গোলে দুইবার এগিয়ে যাওয়ার পরও জিততে পারলো না বার্সেলোনা। অতিরিক্ত সময়ের গোলে কাতালান জায়ান্টদের ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে অ্যাথলেতিক বিলবাও।

তার মধ্যে রেফারির শেষ বাঁশি বাজার অল্প আগে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন লিওনেল মেসি। মেজাজ হারিয়ে বিলবাওয়ের এক খেলোয়াড়ের সঙ্গে উগ্র আচরণ করে বসেন বার্সা অধিনায়ক। এই অভিযোগে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নিয়ে মেসিকে লাল কার্ড দেখানো হয়।

নির্ধারিত ১২০ মিনিট শেষে যখন চলছিল অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের খেলা। বিলবাও এগিয়ে ৩-২ গোলে। সমতা ফেরানোর আশায় আক্রমণে ওঠে বার্সেলোনা। মাঝমাঠের একটু সামনে এগিয়ে ডি-বক্সের বেশ বাইরে সতীর্থদের উদ্দেশ্যে পাস বাড়ান বার্সা অধিনায়ক মেসি। ফিরতি পাসে সেই বল পাওয়ার জন্য এগুতে শুরু করেন তিনি। তখনই হয় নেতিবাচক ঘটনাটি। বিলবাওয়ের হয়ে দ্বিতীয় গোল করা আসিয়ের ভিয়ালিবরের সঙ্গে আলতো ধাক্কা লাগে মেসির। এতেই রেগে আগুন বার্সা অধিনায়ক। সঙ্গে সঙ্গে আসিয়েরের মাথার পেছন দিকে চাটি মেরে দেন তিনি।

ঘটনাটি প্রথমে নজরে আসেনি ম্যাচের মূল রেফারির। কেননা বল তখন ছিল ডি-বক্সে। তবে ভিডিও এসিসট্যান্ট রেফারির চোখ এড়ায়নি। রিপ্লে দেখে মেসিকে সরাসরি দেখানো হয় লাল কার্ড। শুধু লাল কার্ড দেখেই পার পেয়ে যাবেন না মেসি। এমন ঘটনার জন্য চার ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেতে পারেন তিনি। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে স্প্যানিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। চলতি সপ্তাহেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবে স্পেনের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

যদিও বিলবাওয়ের বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দলই নামিয়েছিলেন কোম্যান। ম্যাচের শুরু থেকেও আধিপত্য বিস্তার করেও খেলছিল বার্সা। সেই সুবাদে ৪০তম মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন গ্রিজম্যান। কিন্তু কাতালান জায়ান্টরা সেই ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি। গোল হজমের দুই মিনিট পর অস্কার দে মার্কোস সমতায় ফেরান বিলবাওকে। বিরতির পর ফের এগিয়ে যায় বার্সা। এবারও দলের গোলদাতা গ্রিজম্যান। জর্দি আলবার পাস থেকে ৭৭তম মিনিটে ব্যবধানটা ২-১ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

কিন্তু কে জানতো, ফুটবল ঈশ্বর ম্যাচের ভবিষ্যৎটা অন্যভাবে লিখে রেখেছেন! ব্যবধানটা ধরে রেখে যখন বার্সা শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে তখনই নাটকীয়তা শুরু। ইকার মুনিয়েনের পাস থেকে ৯০তম মিনিটে বিলবাওকে সমতায় ফিরিয়ে ম্যাচ অতিরিক্তি সময়ে নিয়ে যান বদলি হিসেবে নামা আসিয়ের ভিলালিব্রে। অতিরিক্ত সময়ের তৃতীয় মিনিটে তৃতীয় গোল হজম করে বসে বার্সা। ইনাকি উইলিয়ামসকে দিয়ে দলের জয়সূচক গোলটি করান মুনিয়েন। শেষ পযর্ন্ত আর সমতায় ফিরে ম্যাচটি টাইব্রেকারে নিয়ে যেতে পারেনি বার্সা। শিরোপা উৎসবে মেতে ওঠে সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ হারানো বিলবাও।

অর্থসূচক/এএইচআর

 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...