ট্রাকেই প্রাণ গেল চালকের

0
56
track
ট্রাক- ফাইল ছবি

সামনে একটা ট্রাক নিচু জায়গা থেকে রাস্তার উপরের দিকে উঠছে, পিছনে আরও একটি একই চেষ্টা করছে। এই দুই ট্রাকের মাঝখানে হাটতে হাটতে মোবাইল ফোনে পরিবারের খোঁজখবর নিচ্ছিলেন আরেক ট্রাক চালক। হঠাৎ করেই সামনের ট্রাকটি রাস্তায় উঠতে পা পেরে ব্রেক ফেল করে দ্রুত গতিতে পিছনের দিকে পেছালো। মাঝখানে থাকা ট্রাক চালক তখন মোবাইল ফোনে ব্যস্ত। কিছু বুঝে ওঠার আগেই মোবাইল ফোন হাতেই দুই ট্রাকের মাঝে চাপা পড়ে জীবন হারালেন অসতর্ক ট্রাকচালক।

track
ট্রাক- ফাইল ছবি

ট্রাক চাপায় পৃষ্ট দেহ পড়ে থাকলো মাটিতে। রক্ত নুইয়ে পড়ছে সারা দেহ থেকে। তখনও মোবাইলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়নি তার। কেউ হয়তো কেউ হ্যালো হ্যালো বলে যাচ্ছেছিল। কিন্তু এদিকে যে জীবনের সংযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে মাটিতে পড়ে আছে রক্তমাখা নিথর দেহটি। সে খবর হয়তো তখনও জানা হয়নি পরিবারের।

এই হৃদয় বিদারক ঘটনার শিকার হওয়া নিহতের নাম ইমামুল (৩৫)। ঘটনাটি ঘটেছে রংপুর মহানগরীর সাতমাথায়।

পুলিশ ও প্রতক্ষ্যদর্শী সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকাল সোয়া ১১টার দিকে সাতমাথা ট্রাকস্ট্যান্ডে মোবাইল ফোনে কথা বলার সময় দুই ট্রাকের মাঝখানে পড়ে ট্রাকের চাপায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

নিহতের বাড়ি যশোরের পালবাড়ী খয়ারতলা গ্রামে। তার পিতার নাম আব্দুল জলিল মিয়া।

এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী বলেন, সাতমাথায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। নিহতের লাশ মাহিগঞ্জ ফাঁড়ির কর্মকর্তার দায়িত্বে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এফএফ/সাকি