কুকুরের মাংস যেখানে জনপ্রিয় …

0
177

খাবার মেন্যু হিসেবে কুকুরের মাংসের কথা শুনলে আমাদের অনেকেই হয়তো আঁতকে উঠবেন। তবে বিশ্বের কয়েকটি দেশে কুকুরের মাংস বেশ জনপ্রিয় মেন্যু। ফক্স নিউজ অবলম্বনে সেসব দেশের কুকুর ভোজনের চিত্র তুলে ধরা হলো-

চীন

article_img
চীনে একটি মাংসের দোকানে চামড়া ছাড়ানো কুকুর সাজিয়ে রাখা হয়েছে।

চীনে কুকুরের মাংস খাওয়ার ইতিহাস অনেক পুরাতন। দেশটির অনেক অঞ্চলে নিয়মিত আইটেম হিসেবে কুকুরের মাংস রান্না হয়। তবে ২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকের সময় চীন সরকার স্থানীয় রেস্তোরাঁয় কুকুরের মাংস বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলো। বিদেশিদের আশ্বস্ত করতেই ওই সাময়িক নিষেধাজ্ঞা। এমনিতে বেইজিং-এ মাংসের দোকানগুলোতে ঝুলে থাকা কুকুর খুব সাধারণ একটি দৃশ্য।

নাইজেরিয়া

পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটিতে কুকুরের মাংস কমন একটি খাবার। দেশটির অনেকের বিশ্বাস, কুকুরের মাংস খেলে শরীর রোগাক্রান্ত হয় না। তাই কুকুরের মাংসের তৈরি গ্রিল, সোয়ার ওপর মানুষ রীতিমত হামলে পড়ে। স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকি হিসেবে সরকারি সতর্কতার পরও সম্প্রতি ‘ইবোলা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেও দেশটির মানুষ কুকুর খাওয়া বন্ধ করেনি। এমনটিও বিশ্বাস করা হয়, নিয়মিত কুকুরের মাংস ভক্ষণে যৌন জীবন সুখের হয়।

গ্রিনল্যান্ড

গ্রিনল্যান্ডের মতো বরফ শীতল দেশে বাহন হিসেবে কুকুরের বেশ কদর রয়েছে। এসব দেশে স্লেজ গাড়ি টানতে কুকুরের বিকল্প নেই। তাই কুকুরের মাংস সেখানে খুব দামী খাবার।

ভিয়েতনাম

ভিয়েতনামে পারিবারিক ও সামাজিক অনুষ্ঠান, পার্টি কিংবা বিশেষ কোনো উপলক্ষ উদযাপনে কুকুরের মাংস অপরিহার্য। সেখানে কুকুরের মাংসের চাহিদা এতো বেশি যে, রাস্তাঘাটে কুকুর ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটে। এমনকি, চোরকারবারিরা পার্শ্ববর্তী থাইল্যান্ড থেকে নিয়মিত কুকুর এনে বেশি দামে বিক্রি করে।

সুইজারল্যান্ড

পোষা প্রাণী সংরক্ষণের জন্য সুইজারল্যান্ড সরকারের সুনাম রয়েছে। তবে দেশটির কিছু কিছু জায়গায় কুকুরের মাংস খাওয়া হয়। মূলত, গ্রামীণ ওই সব এলাকার কৃষকদের মাঝে কুকুরের মাংস দারণ জনপ্রিয়। ইউরোপের এই দেশটিতে কুকুর নিধন নিষিদ্ধ না হলেও, কুকুর জবাইয়ের ক্ষেত্রে কিছু পদ্ধতি অনুসরণের বাধ্যবাধকতা আছে। তবে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে কুকুরের মাংস বিক্রি করা হয় না।

ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়া মুসলিম প্রধান একটি দেশ। আর মুসলমানদের কুকুরের মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ। তারপরও দেশটির কিছু কিছু স্থানে ছুটির দিনে ও বিবাহ অনুষ্ঠানে ঘটা করে কুকুরে মাংসের রান্নার আয়োজন হয়।

দক্ষিণ কোরিয়া

দক্ষিণ কোরিয়াতে কুকুরের মাংস একসময় দারুণ জনপ্রিয় ছিলো। হালে তরুণদের মাঝে পোষা প্রাণী হিসেবে কুকুরের কদর বাড়ায় ফুড মেন্যু হিসেবে এর জনপ্রিয়তা পড়তির দিকে। দেশটির প্রশাসন কুকুরের মাংস বিক্রিতে আইনগত বৈধতা বা নিষেধাজ্ঞা কোনোটাই জারি করেনি। ধারণা করা হয়, শুধু খাওয়ার জন্য দেশটিতে প্রতিবছর ২০ থেকে ২৫ লাখ কুকুর নিধন করা হয়।