রামকানাই দাশকে শেষশ্রদ্ধা

0
52
Ramkanai-Das
পণ্ডিত রামকানাই দাশ

সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের পর নিজ গ্রাম সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার পেরুয়ায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে একুশে পদকপ্রাপ্ত সঙ্গীতজ্ঞ পন্ডিত রামকানাই দাশের মরদেহ। সকাল সোয়া ৭টার দিকে ওস্তাদ রামকানাই দাসের মরদেহ সিলেট পৌঁছে।

Ramkanai-Das
পণ্ডিত রামকানাই দাশ

মরদেহ সরাসরি নিয়ে যাওয়া হয় মহানগরীর করের পাড়া এলাকায় তার নিজের বাসায়। সকাল ১১টায় শহীদ মিনারে এ গুণীজনের মরদেহ নিয়ে আসা হলে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে। সিলেট সিটি কর্পোরেশন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিলেটবাসীর পক্ষ থেকে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করতে এসে সুরস্রষ্টা রামকানাই দাসকে নীরব-নিথর দেখে অনেকের পক্ষেই কান্না ধরে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

গতকাল শুক্রবার রাত ১০টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর মেট্রোপলিটন হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে ২৭ আগস্ট মেট্রোপলিটন হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয় ।

গান গাওয়ার পাশাপাশি তিনি গান লিখছেন এবং সুর করেছেন। সেই সঙ্গে শিক্ষক হিসাবে তৈরি করেছেন বহু শিল্পী।

১৯৬৭ সাল থেকে সিলেট বেতারে নিয়মিত সংগীত পরিবেশন করে আসা রামকানাইয়ের গানের অ্যালবামগুলো হলো- ‘বন্ধুর বাঁশি বাজে’ (২০০৪); ‘সুরধ্বনির কিনারায়’ (২০০৫); ‘রাগাঞ্জলি’ (২০০৬); ‘অসময়ে ধরলাম পাড়ি’ (২০০৬) এবং ‘পাগলা মাঝি’ (২০১০)।

শাস্ত্রীয় সঙ্গীত শিক্ষা নিয়ে ‘সরল সঙ্গীত শিক্ষা’ নামে একটি বইও লিখেছেন রামকানাই। সংগীতে অবদানের জন্য একুশে পদক ছাড়াও ২০১২ সালে বাংলা একাডেমির সম্মানসূচক ‘ফেলোশিপ’ এবং ২০০০ সালে ‘রবীন্দ্র পদক’ পেয়েছেন তিনি।

ইউএম/