ব্যক্তি উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ: শিল্পমন্ত্রী

0
63
বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘গ্লোবাল কম্পিটেটিভ রিপোর্ট ২০১৪-১৫ প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু
বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘গ্লোবাল কম্পিটেটিভ রিপোর্ট ২০১৪-১৫ প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু
বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘গ্লোবাল কম্পিটেটিভ রিপোর্ট ২০১৪-১৫ প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করতে সরকার ব্যাক্তি উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ বরাদ্দের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত ‘গ্লোবাল কম্পিটেটিভ রিপোর্ট ২০১৪-১৫ প্রকাশ ও আলোচনা সভায় এ কথা জানান তিনি।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশ সরকার ২০১১ সালে দশ বছর মেয়াদী বিশেষ লক্ষ্যমাত্রা হাতে নিয়েছিল। এর অনেক অংশই এখন বাস্তবায়নের পথে। দেশে জিডিপির প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। রপ্তানি আয় প্রতিবেশী দেশের তুলনায় অনেক বেড়েছে। প্রবাসী আয়ের পরিমাণও লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে গেছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানীর ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সফলতা অর্জিত হয়েছে।

আমু বলেন, আমাদের লক্ষ্যমাত্রা হলো ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করা। এ লক্ষ্যে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি ব্যাক্তি উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ বরাদ্দের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে এসএমই ঋণের হার বাড়ানো, পোশাক শিল্পসহ বেশ কিছু খাতে কর অবকাশ সুবিধা ও বিশেষ অঞ্চল গড়ে শিল্প-কারখানার জন্য বিশেষ সুবিধা দেওয়া, কারিগরি শিক্ষার বিস্তার লাভ, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর শিল্প ও শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলার মতো পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব অর্থনৈতিক উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের এক ধাপ আগানোর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শিল্প খাতে বিশেষ সুবিধা ও কারিগরী জ্ঞানের প্রসার ঘটানোর কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতির রেটিং পয়েন্ট এগিয়েছে। তবে গত বছরের রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা না থাকলে বাংলাদেশ আরও ভালো করতো।

ডব্লিউইএফ’র প্রতিবেদনে অবকাঠামো উন্নয়ন না হওয়া ও দুর্নীতির প্রতিরোধ না করার বিষয়ে তিনি বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন স্বাধীন প্রতিষ্ঠান। তারা বর্তমান সরকারের মন্ত্রী-এমপি সচিবদের বিরুদ্ধেও মামলা করছে। আর অবকাঠামো উন্নয়নের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। খুব শিগগিরই এ দুর্বলতা থেকে বেরিয়ে আসা হবে।

 আলোচনা সভায় বিশ্বের অর্থনীতির অগ্রগতি নিয়েডব্লিউইএফ’র প্রতিবেদন প্রকাশ করে সিপিডি।প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্ব অর্থনৈতিক সূচকে বাংলাদেশ একধাপ এগিয়েছে। এ সূচকেবাংলাদেশের অগ্রগতি শূন্য দশমিক শূন্য এক পয়েন্ট। দক্ষিন এশিয়ার দেশ নেপাল ১৫ ধাপ এগিয়ে ১১৭ থেকে ১০২ ও ভুটান ৬ ধাপ এগিয়ে ১০৯ থেকে ১০৩ এসেছে। তবে অবনমন হয়েছে ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার।

আর সূচকের শীর্ষে রয়েছে সুইজারল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, যুক্তরাষ্ট্র, ফিনল্যান্ডসহ উন্নত বিশ্বের দেশসমুহ।

অনুষ্ঠানে সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মনজুর-ই এলাহী, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. মোস্তাফিজুর রহমানসহ বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।