সূচক বাড়লেও লেনদেনে অবনতি

0
65
DSE-CSE UP
সূচক বেড়েছে

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বুধবার সূচক বাড়লেও লেনদেনে অবনতি হয়েছে। এদিন ডিএসই প্রধান সূচক বেড়েছে ৩০ পয়েন্ট। তবে লেনদেন কমেছে ১ কোটি টাকার। অপর বাজার চ্ট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও সূচক বেড়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার ডিএসইতে ৫৫০ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর আগের দিন এ বাজারে ৫৫১ কোটি ৬৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। অর্থাৎ লেনদেন কমেছে ১ কোটি ১ লাখ টাকার।

বিশ্লেষকদের মতে, বর্তমান বাজারে লেনদেন কমে গেলেও এতে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। আগের দু’তিন সপ্তাহে বড় মূলধনের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম অনেক বেড়েছিল। এ সপ্তাহে সেগুলোতে মূল্য সংশোধন হয়েছে। অন্যদিকে সম্প্রতি তালিকাভুক্ত কয়েকটি কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগের জন্য অনেক বিনিয়োগকারী অপেক্ষা করায় পুরনো শেয়ারে বিনিয়োগ থেকে কয়েকদিন নিষ্ক্রিয় তারা। এ কারণে বাজারে লেনদেন কমেছে। তবে লেনদেন আবার বাড়বে বলে ধারণা করছেন তারা।

বুধবার ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক বা ডিএসইএক্স সূচক ৩০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৬৩২ পয়েন্টে। আর ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৮৭ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ১২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার  ৭৫৮ পয়েন্টে।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নিয়েছে ২৯৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২০৫টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ৬৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির।

আজ বেক্সিমকোকে পিছনে ফেলে লেনদেনের শীর্ষ স্থান দখল করেছে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট।

এছাড়া ডিএসইতে টাকার অঙ্কে লেনদেনে শীর্ষে থাকা অপর কোম্পানিগুলো হচ্ছে- গ্রামীণ ফোন, বেক্সিমকো,বেক্সিমকো ফার্মা,  এমজেএলবিডি, সামিট পাওয়ার কোম্পানি, বেঙ্গল উইন্ডসর থার্মোপ্লাস্টিক, বিএসআরএম স্টীল, ইউনাইটেড এয়ার এবং স্কয়ার ফার্মা।

অপরদিকে বুধবার সিএসই সার্বিক সূচক ১১৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৪ হাজার ৩৬৪ পয়েন্টে। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২১৯টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪০টির, কমেছে ৫৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির।

অর্থসূচক/এসএ/