ধর্ষণ করতে সিনেমা হলে যেত টোটন

0
39
toton
আদালতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে টোটনকে
toton
আদালতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে টোটনকে

শুধু ধর্ষিতা কিশোরী নয়, নানা বয়সের অনেক মহিলাদের নিয়েই ভারতের চন্দ্রকোনার ওই সিনেমা হলে যেত টোটন। ধর্ষণের ফলে কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় আটক টোটনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর এমন তথ্যই জানতে পেরেছে পুলিশ।

সিনেমা হলের বক্সে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে সোমবারই জানতে পারে পুলিশ। আটক করা হয় হল মালিক রূপকুমার গোস্বামী ও সেখানকার তিন কর্মীকে।

পুলিশ জানিয়েছে,  মাস তিনেক আগে থেকে টোটনের সাথে আলাপ হয় ওই কিশোরীর। তবে প্রথম দিকে ওই কিশোরীর বোনের সঙ্গে কথা হত টোটনের। গত মাসে বোনের বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর ওই কিশোরীর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল টোটনের।

ঘটনার তদন্তকারী অফিসার সোমনাথ দত্ত জানিয়েছেন, রোববারের ঘটনার ৭ দিন আগে টোটন সিনেমা দেখার জন্য ওই কিশোরীকে ঘাটালে আসতে বলে। পরিকল্পনামাফিক চন্দ্রকোনার ওই সিনেমাহলের সামনে হাজির হয় ওই কিশোরী।

পুলিশ সূত্রে খবর, একাধিকবার অন্য অনেক মহিলার সঙ্গে টোটন হলে আসায়, তাকে হলের মালিক-সহ কর্মীরা চিনতেন। রবিবার হলে দর্শকও ছিল কম। ওই কিশোরীকে নিয়ে হলের একদম কোণের একটি বক্সে বসেছিল টোটন।

পুলিশের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদে টোটন ওই কিশোরীর উপর নির্যাতনের স্বীকার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, রোববার বিকেলে ঘাটালের রাধানগরে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় ওই কিশোরীকে পড়ে থাকতে দেখা যায়।

কিশোরীর মা জানিয়েছিলেন, রোববার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ চন্দ্রকোনা শহরে এক আত্মীয়ের বাড়ি যাওয়ার জন্য বেরিয়েছিল তার মেয়ে। বিকেল সাড়ে ৩টে নাগাদ ঘাটাল-ডিঙাল রুটের এক ট্রেকারচালক ওই কিশোরীর মাকে জানান, মেয়েকে ঘাটাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তিনি হাসপাতালে যাওয়ার আগেই মৃত্যু হয়েছিল মেয়ের। সূত্র: আনন্দবাজার।