দেহ ব্যবসার অভিযোগে গ্রেপ্তার শ্বেতা

0
176
swetha_basu
swetha-basu-
তেলেগু অভিনেত্রী শ্বেতা বসু প্রসাদ- ফাইল ছবি

দেহ ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে জনপ্রিয় তেলেগু অভিনেত্রী শ্বেতা বসু প্রসাদকে গ্রেপ্তার করেছে হায়দ্রাবাদ পুলিশ।

ভারতের বার্তাসংস্থা ওয়ানইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, হায়দ্রাবাদের বাঞ্জারা হিলসের একটি হোটেলে অভিযান চালিয়ে শ্বেতাসহ তেলেগু ফিল্ম জগতের বেশ কিছু নামিদামি শিল্পপতিকেও হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

গোপনসূত্রে দেহব্যবসার খবর পেয়ে পুলিশ বাঞ্জারা হিলসের হোটেলে রোববার রাতে হানা দেয়। সেখানে কয়েকজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে শ্বেতাকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যায়। তৎক্ষণাৎ পুলিশ দেহ ব্যবসায় জড়িত থাকার কারণে শ্বেতাসহ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া দেহ ব্যবসার দালাল বালু নামের এক ব্যক্তিকেও আটক করেছে পুলিশ।

এই প্রথমবার নয়, এর আগেও ছায়াছবিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র পাওয়ার জন্য সমঝোতার উদ্দেশ্যে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়েন শ্বেতা। পরে অবশ্য নিজের এই কীর্তির কথা স্বীকার করেছিলেন তিনি।

তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির একাংশের মতে, ছবিতে ভালো কোনো চরিত্রের ‘অফার’ না পাওয়ার কারণেই এই পথে যেতে বাধ্য হয়েছেন শ্বেতা।

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, টলিউডের অভিনেত্রী হলেও শ্বেতার উত্থান কিন্তু হিন্দি টেলিভিশন ও বলিউডের হাত ধরেই। একতা কাপুরের জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘কাহানি ঘর ঘর কি’-তে মূল চরিত্র ওম ও পার্বতীর মেয়ে শ্রুতির চরিত্রে শিশুঅভিনেত্রী শ্বেতা অভিনয় করেছিলেন।

বিশাল ভরদ্বাজের মকড়ি ছবিতে চুন্নি-মুন্নির দ্বৈত ভূমিকায় অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হিসাবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন।

ইকবাল ছবিতেও শ্রেয়াস তলপডের বোনের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, শ্বেতার সঙ্গে বাংলার যোগও অত্যন্ত গাঢ়। শ্বেতার মা পশ্চিমবঙ্গেরই মেয়ে। তাছাড়াও এক নদীর গল্প- ছবিতে মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গেও দেখা গিয়েছিল শ্বেতাকে।

এএসএ/